ভাষাসৈনিক ড. হালিমা খাতুন আর নেই

গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : ভাষাসৈনিক ও সাহিত্যিক ড. হালিমা খাতুন আর নেই। মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

হৃদরোগ, কিডনি জটিলতা, রক্তদূষণের মতো নানা জটিলতা নিয়ে গত শনিবার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ৮৬ বছর বয়সী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এই শিক্ষক।

ভাষা আন্দোলনে তাঁর অনন্য অবদানের জন্য শিল্পকলা একাডেমি তাকে ভাষা সৈনিক সম্মাননা প্রদান করে। হালিমা খাতুনের একমাত্র মেয়ে দেশের অন্যতম আবৃত্তিশিল্পী প্রজ্ঞা লাবণী।

ড. হালিমা খাতুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৫৩ সালে সাহিত্যে এম এ পাশ করেন। ১৯৬৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব নর্দান কলোরোডো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষার উপর পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

পরে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিস্টিউটে দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করেন। ভাষা আন্দোলনে তার সাহসী ভূমিকা এবং সাহিত্যে তার অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলা একাডেমী পুরস্কার, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী কর্তৃক ভাষা সৈনিক সম্মাননা, বাংলাদেশ শিশু একাডেমী সাহিত্য পুরস্কারসহ বিভিন্ন সময় প্রায় ৩৪ টি পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন।

ড. হালিমা খাতুন জাতিসংঘের উপদেষ্টা হিসেবে দু’বছর দায়িত্ব পালন করেন। ২৬ জুলাই ২০১৭ থেকে তিনি গণ বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন এবং ২০০৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ড. হালিমা খাতুনের মৃত্যুতে গণ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার গভীরভাবে মর্মাহত ও শোকাহত। গণ বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্ট, শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীর পক্ষ থেকে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়েছে।

Inline
Inline