ভারত থেকে আসছে আরও দেড় লাখ মেট্রিক টন চাল

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভারত থেকে আরও দেড় লাখ মেট্রিক টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।
সচিবালয়ে বুধবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে ক্রয় কমিটির সভায় চাল আমদানির এই প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়।
সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, ভারত থেকে জিটুজি পদ্ধতিতে প্রতি মেট্রিক টন ৪৪০ মার্কিন ডলারে দেড় লাখ মেট্রিক টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল আমদানির প্রস্তাব ক্রয় কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। দেড় লাখ টন চাল আমদানিতে বাংলাদেশি টাকায় মোট খরচ হবে ৫৪৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা।
খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, ভারতের সরকারি প্রতিষ্ঠান নাফিড লিমিটেড এবং বাংলাদেশের জিটুজি পদ্ধতিতে (সরকারিভাবে) ক্রয় বিষয়ক কমিটির মধ্যে চাল নিয়ে সমঝোতার ভিত্তিতে প্রতি টন চালের দাম ৪৪০ ডলার নির্ধারণ করা হয়।
সমঝোতা অনুযায়ী, ঋণপত্র খোলার ৬০ দিনের মধ্যে সব চাল সরবরাহ করবে ভারত। ঋণপত্র পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে পাঠাবে ১৫ হাজার টন চালের প্রথম চালান।
চুক্তি অনুযায়ী, ভারতকে ২০১৭ সালে উত্পাদিত চাল সরবরাহ করতে হবে। আর এই চালে ৫ শতাংশ ভাঙা দানাসহ অন্যান্য প্যারামিটারে বাংলাদেশ কোনো ছাড় না দেয়ায় চালের দাম একটু বেশিই পড়ছে বলে একজন কর্মকর্তা জানান।
চালের সরকারি মজুদ তলানিতে নেমে যাওয়ায় চলতি অর্থবছরে ১৫ লাখ মেট্রিক টন চাল এবং পাঁচ লাখ টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।
আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান ছাড়াও কয়েকটি দেশ থেকে সরকারিভাবে ধাপে ধাপে এই আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দিচ্ছে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।
এর আগে গত ১৮ অক্টোবর ভারত থেকে এক লাখ মেট্রিক টন নন-বাসমতি সিদ্ধ চাল আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন করে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।