ভাগ্নেকে ছেড়ে দিয়ে মামাকে পেটাল পুলিশ

মাগুরা সংবাদদাতা : মাগুরায় ছাত্রলীগকর্মী আবির আহমেদ ইভানকে মারধর করেছে পুলিশ। এর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার বেলা ১১টা থেকে জেলা শহরের প্রধান সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। দোষী পুলিশ কর্মকর্তা ডিবির এসআই নাসির এবং ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর মিজানের অপসারণ চেয়েছে তারা।

স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অভিযোগ, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মাগুরা শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের সহায়তায় স্কাউট সদস্যদের অভিযান চলছিল। এ সময় হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালানোর অভিযোগে তারা ইমন নামে মাগুরা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের এক ছাত্রের গাড়ি আটকে রাখে।

এ সময় ইমন সাহায্য চেয়ে তার মামা মাগুরা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র আবির আহমেদ ইভানকে ডেকে পাঠায়। ইভান ও জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদি হাসান রুবেল ঘটনাস্থলে যায়।

এ সময় পুলিশ মোটরসাইকেলচালক ইমনকে ছেড়ে দিলেও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ডিবির এসআই ছাত্রলীগ সভাপতি রুবেলের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে।

এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে টিআই মিজান এবং এসআই নাসিরের নির্দেশে ৮-১০ পুলিশ ছাত্রলীগকর্মী আবির আহমেদ ইভানকে শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে প্রকাশ্যে চড়, লাথিসহ বেধড়ক মারধর করে। এ ঘটনার পর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে।

এ বিষয়ে মাগুরা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদি হাসান রুবেল বলেন, পুলিশের এমন আচরণ এবং সামান্য কারণে নির্যাতনের ঘটনা অমার্জিত। অবিলম্বে দোষী পুলিশ কর্মকর্তাদের বিচার চাই।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল আলম বলেন, মাগুরা জেলা আওয়ামী লীগের ঊর্ধ্বতন নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বিষয়টির সুরাহা করতে আলোচনা চলছে। শিগগিরই এর সমাধান হবে।