ভর্তি ফরমের মূল্য কমাতে শাবি প্রশাসনকে আল্টিমেটাম

বর্ধিত ভর্তি ফরমের মূল্য কমাতে প্রশাসনকে ৯৬ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ভর্তি ফরমের মূল্যবৃদ্ধি বিরোধী শিক্ষার্থী মঞ্চ’। এই সময়ের মধ্যে ফরমের মূল্য না কমালে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে দুর্বার আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

বুধবার শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ‘ভর্তি ফরমের মূল্যবৃদ্ধি বিরোধী শিক্ষার্থী মঞ্চের সদস্যরা এই আল্টিমেটাম দেন। বিশ^বিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক, স্বেচ্ছাসেবী, সাংস্কৃতিক ও ছাত্রসংগঠনসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে এ মঞ্চ গঠিত হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

মঞ্চের মুখপাত্র ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক আহ্বায়ক সারোয়ার তুষার, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক আহ্বায়ক গিয়াস বাবু, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের আহ্বায়ক অপু কুমার দাশ, পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী সোহেল মুন্নাসহ বিশ^বিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক, স্বেচ্ছাসেবী, সাংস্কৃতিক সংগঠন, ছাত্রসংগঠনের নেতাকর্মীরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে সারোয়ার তুষার বলেন, শাবিপ্রবিতে ২০১৬-১৭ সেশনে ভর্তি ফরমের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১০০০-১২০০ টাকা যেখানে গত বছর ছিল ৭৫০-৯০০ টাকা, ২০০৮-০৯ সেশনে ছিলো ৩০০-৩৫০ টাকা। মাত্র কয়েকবছরের ব্যবধানে তা চারগুন বাড়ানো হয়েছে। শুধুমাত্র গতবছরের তুলনায় এবার ভর্তি ফি বৃদ্ধি করা হয়েছে ৩৩.৩৩ শতাংশ। এ অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির পেছনে যুক্তি দেখানো হয়েছে মুদ্রাস্ফীতি ও আমাদের বিশ^বিদ্যালয়ের ভর্তি ফরমের মূল্য নাকি অনেক কম। তিনি বলেন, আমরাও বুঝি খুব যৌক্তিক কোনো কারণে দাম বৃদ্ধি হয়নি, ফরমের দাম বেড়েছে সংশ্লিষ্টদের পাওয়া না পাওয়ার হিসাব নিয়ে।

তিনি আরও বলেন, শুধুমাত্র উচ্চমূল্যের কারণে ভর্তি পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পাবে না দেশের অধিকাংশ নিম্ন ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তানরা। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ভর্তি ফরমের বর্ধিত মূল্য না কমালে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকি প্রদান করেন উপস্থিত ওই সকল নেতাকর্মীরা।