ব্রাজিল-বেলজিয়াম: মধ্যরাতে বাঘ-সিংহের লড়াই

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে আজ মুখোমুখি হবে ব্রাজিল-বেলজিয়াম। মধ্যরাতে লড়াইটা শুধু দুই দলের বলা যায় না, বরং লড়াইটা বাঘ-সিংহের। কারণ ফিফা র‌্যাংকিংয়ে দুই নম্বর দল ব্রাজিল। তার ঠিক পেছনেই তিন নম্বরে আছে বেলজিয়াম। নিজেদের হেক্সার আশা পূরণ করতে বিশ্ব মঞ্চে সেলেসাওরা। আবার ছাড় দিতে রাজি নয় বেলজিয়ামও। তাই লড়াই হবে সমানে সমানে। রাশিয়ার কাজান অ্যারেনায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয় হবে বাংলাদেশ সময় রাত বারোটায়।

কোয়ার্টার ফাইনালের এই ম্যাচটি দুই দলের জন্য ফাইনাল। যারা জিতবে তাদের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি শিরোপা জয়ের পথটাও হয়ে যাবে মসৃণ। ২০০২ সালে নিজেদের পঞ্চম বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছে ব্রাজিল। এরপর আরো তিনটি আসরে অংশগ্রহণ করলেও সেই হেক্সার স্বপ্ন আর পূরণ হয়নি তাদের। এবার ষষ্ঠবার বিশ্বসেরা হওয়ার অনেকটাই কাছে ব্রাজিল। আজ বেলজিয়াম পরীক্ষা পাশ করলেই নিজেদের স্বপ্নে পথে আরো একধাপ এগিয়ে যাবে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

অপরদিকে বিশ্বকাপে এর আগে দুইবার কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে বেলজিয়াম। ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপেও শেষ আটে খেলেছে তারা। কিন্তু বিশ্বকাপে তাদের সেরা সাফল্য সেমিফাইনাল। ১৯৮৬ সালে ফুটবলের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্টের সেমি-ফাইনালে পৌঁছেছিল ইউরোপের দেশটি। কিন্তু ঐ আসরের চ্যাম্পিয়ন দিয়েগো মারাদোনার আর্জেন্টিনার কাছে হেরে বিদায় নিতে হয় তাদের। এবার আরো একটি কঠিন পরীক্ষার সামনে ইউরোপের দেশটি। আজ বিশ্বসেরা দল ব্রাজিলকে কোন মতে ঠেকাতে পারলেই নিজেদের স্বপ্ন জয়ের পথে এগিয়ে যাবে বেলজিয়ামও।

বিশ্বকাপের চলতি আসরে ফেভারিটদের মধ্যে এখন পর্যন্ত টিকে আছে ব্রাজিল। কাজান অ্যারানাকে পরাশক্তিদের মরণফাঁদও বলা চলে। কেননা এই মাঠেই গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে হেরে বিদায় নিয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি। শেষ ষোলোতে ফ্রান্সের কাছে ৪-৩ গোলে হেরে দেশে ফিরতে হয়েছে গেলবারের রানার্সআপ আর্জেন্টিনাকেও। এবার সেই মাঠেই কঠিন পরীক্ষা দিবেন নেইমার-জেসুস-কুতিনহোরা। কোন মতে আজ বেলজিয়াম বাঁধা কাটানোই আজ নেইমারদের মূল লক্ষ্য।

চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের সেরাটা প্রমাণ করেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে ব্রাজিল। নিজেদের শেষ ১৬টি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে হারেনি ল্যাটিন আমেরিকার দেশটি। অপরদিকে নিজেদের শেষ ২২ ম্যাচ অপরাজিত আছে বেলজিয়ামও। ২০১৬ সালে ইউরোর কোয়ার্টার-ফাইনালে ওয়েলসের বিপক্ষে শেষ প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ হেরেছিল তারা।

এখন পর্যন্ত মোট চার মুখোমুখি হয়েছে ব্রাজিল-বেলজিয়াম। তাতে ব্রাজিলের তিন জয়ের বিপরীতে বেলজিয়ামের জয় একটিতে। ২০০২ বিশ্বকাপের শেষ ষোলোতে সবশেষ দেখায় বেলজিয়ামকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল। আর ১৯৬৩ সালে দুই দলের প্রথম লড়াইয়ে ব্রাজিলকে হারিয়েছিল বেলজিয়াম।

ব্রাজিলের একাদশে আজ থাকবেন না দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় কাসেমিরো। থাইয়ের ইনজুরি কাটিয়ে ডগলাস কস্তা ফিরতে পারবেন কিনা তা নিয়েও রয়েছে শঙ্কা। তবে রিয়াল মাদ্রিদ তারকা মার্সেলোর ফিরে আসাটা প্রায় নিশ্চিত। তবে সবকিছু ছাপিয়ে মূল স্পটলাইট থাকবে বিশ্বের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় নেইমারের দিকে। কারণ নিজেদের শেষ ম্যাচে নেইমার জাদুতেই কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট পায় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিনরা।

সবকিছু মিলিয়ে আজ চলতি আসরের সবচেয়ে হাইভোল্টেজ ম্যাচই দেখতে পাবে গোটা ফুটবল দুনিয়া।

Inline
Inline