বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে আ.লীগের সভায় হাজারো মানুষের ঢল

অনিমেশ দাস, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনা বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে জামালগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেলে উক্ত স্থানে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক জামিল আহমদ জুয়েলের সঞ্চালনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে মহাজোট প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, ‘নৌকা মার্কা বিজয়ী হলে হাওর এলাকায় একটি স্পেশাল ইকোনোমিক জোন নির্মাণ করা হবে। সীমান্ত এলাকায় একটি সিমেন্ট কারখানা, মোহনগঞ্জ থেকে সুনামগঞ্জ পর্যন্ত রেল লাইন সম্প্রসারণ, সবজি সংরক্ষনের জন্য সাইলো, জমির ধান পরিবহণের হাওরে অভ্যন্তরীন সড়ক, সাচনা জামালগঞ্জের মধ্যে সংযোগ ঘটাতে সুরমা নদীতে সেতু নির্মাণ করা হবে। আসন্ন নির্বাচনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে নৌকার সমর্থনে কাজ করে যেতে হবে। নৌকা মার্কা হলো দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির প্রতীক। সকল বিভেদ ভুলে নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে। প্রতিটি কেন্দ্রে নৌকার গণজোয়ার তৈরি করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত ১০ বছরে নির্বাচনী এলাকায় সাধ্যমতো উন্নয়ন করেছি। বিশেষ করে শিক্ষা, যোগাযোগ, স্বাস্থ্য, ফসল রক্ষা, বাঁধ, ব্রীজ কালভার্ট নির্মাণ করেছি। আমার ভুল ত্রুটি গুলো ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখে উন্নয়নের স্বার্থে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আকুতি ব্যক্ত করেন তিনি।

সমাবেশের প্রধানবক্তা ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুট বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নকে ধরে রাখতে হলে নৌকা মার্কার বিকল্প নেই। সব ভেদাভেদ ভুলে নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। উন্নয়নের মহাসড়কে ওঠতে হলে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে হবে।’

হাওর বান্ধব সরকার হাওরে মানুষের জীবন মানের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে। এসব প্রকল্পের সুফল হাওরবাসী পাচ্ছেন। আগামীতে প্রতিটি কেন্দ্রে ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করার আহ্বান জানান তিনি।

সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামছুন নাহার বেগম শাহানা রব্বানী বলেন, ‘জেলার ৫টি আসনের মধ্যে হাওর বেস্টিত সুনামগঞ্জ-১ আসনে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা হাওরবাসীকে বেশি ভালোবাসেন। আগামীতে নৌকা বিজয়ী হলে আরও বেশি উন্নয়ন হবে।’

তিনি আসন্ন নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন বলেন, ‘এখন বিভেদ করার সময় নেই। আসন্ন নির্বাচনে প্রত্যেক নেতাকর্মীকে নৌকার সমর্থনে মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে উন্নয়নের কথা বলে নৌকা মার্কায় ভোট চাইতে হবে। কোন অবস্থাতেই নিজেদের মধ্যে বিভেদ আনা যাবে না। আগামীতে দেশ ও জনগণের স্বার্থে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। তাই এখন থেকে নৌকার সমর্থনে জোরালো আওয়াজ তুলতে হবে।’

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাচনা বাজার ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শামীম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নান্টু রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক শংকর দাস, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ইশতিয়াক আহমদ শামীম, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকি উজ্জ্বল, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল করিম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ইউসুফ আল আজাদ, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টু, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, জেলা যুবলীগ নেতা ও সাবেক মেয়র নুরুল ইসলাম বজলু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দীপঙ্কর কান্তি দে, জেলা পরিষদের সদস্য আবুল আজাদ, জামালগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোবারক হোসেন, জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাফিজা আক্তার দিপু, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আসাদ আল আজাদ, জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মিসবাহ উদ্দিন, জেলা যুবলীগ নেতা নাসিরুল হক আফিন্দি, জামালগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল খালেক, জামালগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ইকবাল আল আজাদ, জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রজব আলী, ভীমখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামানসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ যুবলীগ, কৃষকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীগণ বক্তব্য রাখেন।

উক্ত সভায় বৈরি আবহওয়া উপেক্ষা করে হাজারো মানুষের ঢল নামে।