‘বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন উপহার দিতে প্রস্তুত র‌্যাব’

নীলফামারী সংবাদদাতা : র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব-১৩ রংপুরের অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মোজাম্মেল হক বলেছেন, আগামীকাল রোববার (১০ মার্চ) রংপুর বিভাগের নীলফামারী, পঞ্চগড়, লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রাম জেলার ২১টি উপজেলায় ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম দফায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচন সম্পূর্ণ অবাধ, নিরপেক্ষ, বিশ্বাসযোগ্য এবং উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত করার জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে র‌্যাব।

তিনি বলেন, নির্বাচনে নিরাপত্তার অংশ হিসেবে প্রতিটি উপজেলায় র‌্যাবের টহল থাকবে। যেকোনো ধরনের সন্ত্রাস, নৈরাজ্য এবং নির্বাচন সংক্রান্ত সহিংসতা মোকাবেলা করবে র‌্যাবের সদস্যরা। যাতে করে আমাদের সাধারণ ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে যেতে এবং ভোট দিয়ে বাড়ি ফিরতে পারেন।

শনিবার দুপুরে নীলফামারী সিপিসি-২ ক্যাম্পে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে প্রেস ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন র‌্যাব-১৩ অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, নির্বাচন ঘিরে র‌্যাবের গোয়েন্দা টিম সাদা পোশাকে কাজ করছে। যারা নির্বাচনে সন্ত্রাস ও নাশকতা করতে চায়, জাল ভোট দিতে চায় এবং ভোটকেন্দ্র দখল করতে চায় তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে। এছাড়া র‌্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড টিমও নির্বাচনী মাঠে রাখা হয়েছে।

অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মোজাম্মেল হক আরও বলেন, নির্বাচন পরবর্তী যেকোনো সহিংসতা মোকাবেলার জন্য নির্বাচন পরবর্তী আরও দুইদিন মাঠে থাকবে র‌্যাবের টিম। যদি কেউ কোনোরকম নৈরাজ্যের চেষ্টা করে তবে সে কোন দল কিংবা কোন পদে রয়েছে তা দেখা হবে না। দল এবং পদ বিবেচনা না করে সে যেই হোক তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। একই সঙ্গে নির্বাচনকে অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু করতে সব ধরনের সহযোগিতা করবে র‌্যাব-১৩-এর সদস্যরা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- র‌্যাব-১৩-এর সহকারী-অধিনায়ক (টুআইসি) মেজর আরমিন রাব্বী, মেজর গালিব, পুলিশ সুপার সিদ্দিক আহমেদ, সহকারী পুলিশ সুপার সাকিব, নীলফামারীর স্কোয়াড কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার নাজমুস সাকিব প্রমুখ।