বিশ্বকাপ নিয়ে ‘ব্রাজিল পাগলা ক্লাব’র কর্মসূচি

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা সংবাদদাতা : ফুটবল বিশ্বকাপ-২০১৮ ১৪ জুন থেকে শুরু হবে। বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের ফুটবল প্রেমীরা অধীর আগ্রহে রয়েছে প্রিয় দলের খেলা দেখার জন্য।
ইতোমধ্যে বাংলাদেশের প্রতিটি আনাচে-কানাচে প্রিয় দলের পতাকা লাগানোর উৎসব শুরু হয়েছে। অনেকে আবার পরতে শুরু করেছে প্রিয় দলের জার্সি। জল্পনা, কল্পনা ও নানা সমীকরণ মেলাতে শুরু করেছে কিশোরসহ প্রবীণরাও।
এদিকে, ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে মেতে উঠেছে গাইবান্ধা সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ভগবানপুর গ্রামের ‘ব্রাজিল পাগলা ক্লাব’। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ক্লাবটি হাতে নিয়েছে নানা কর্মসূচি।
এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- ক্লাবের সকল সদস্যদের নিয়ে একসঙ্গে প্রজেক্টরের মাধ্যমে বড় পর্দায় খেলা দেখা, ঢোল বাজানো, বাঁশি বাজানো, নির্বিঘ্নে খেলা উপভোগ করার জন্য জেনারেটরের ব্যবস্থা, ক্লাবের সদস্যদের জন্য ব্রাজিল দলের জার্সি নিশ্চিত করাসহ নতুন সদস্য সংগ্রহ করা।
‘ব্রাজিল পাগলা ক্লাব’ ২০১৪ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের পূর্বে স্থানীয় তরুণদের উদ্যোগে গঠন করা হয়। ক্লাবে রয়েছে মোট ১৫ জন সদস্য। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ক্লাবটি তাদের সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করে আসছে। এছাড়াও ক্লাবের সদস্যরা সমাজে বাল্য বিবাহ বন্ধ করাসহ বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমে অংশ নেয়।
‘ব্রাজিল পাগলা ক্লাব’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ফরহাদ সর্দার মুকুল বলেন, ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের আগে স্থানীয় বালুয়া বাজারে একটি অস্থায়ী কার্যালয়ের মাধ্যমে ক্লাবটি যাত্রা শুরু করে। নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী ক্লাবের সদস্যরা এখানে চাঁদা দেয়। সেই টাকা দিয়ে প্রতি বিশ্বকাপে কোন রকমে ক্লাবের কার্যক্রম চালানো হয়। ১৭ জুন ব্রাজিল প্রথম খেলা অনুষ্ঠিত হবে। আশা করছি প্রথম খেলাতেই ব্রাজিল জয়ের মধ্য দিয়ে এবারের আসর শুরু করবে।
ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা হাসু বলেন, আমাদের ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রজেক্টরের মাধ্যমে বড় পর্দায় ব্রাজিল সমর্থিত সকল দর্শকদের নিয়ে একসঙ্গে খেলা দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বিশ্বকাপ আসলেই সদস্যরা ক্লাবে আসা শুরু করে। ফুটবল খেলা নিয়ে নানা গল্প, গুজব করে সময় পার করে। ভক্তদের বিশ্বাস ব্রাজিল এবারের আসরে দর্শকদের সর্বোচ্চ খেলা উপহার দেবে।
এদিকে, ক্লাবের সদস্য শাহিন, তুষার, আরিফুল, মামুন, তৌহিদ, মানিক, জুয়েল, আলামিন, মোনারুল ও ময়নুল ইসলাম আশাবাদী এবারের বিশ্বকাপ ব্রাজিলই ছিনিয়ে নিবে।