বিরোধী দলকে কেন প্রশ্ন করেন না, গণমাধ্যমকে তারানা

নিজস্ব সংবাদদাতা : গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সরকারের পাশাপাশি বিরোধী দলেরও জবাবহিদিতা থাকতে হয় জানিয়ে সরকারের পাশাপাশি বিএনপি নিয়েও প্রশ্ন তুলতে গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজের প্রতিনিধি সম্মেলনে যোগ দিয়ে এই আহ্বান জানান তারানা।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিরোধী দল কেন বাংলাদেশের জাতীয় গৌরবের বিষয়ে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারে না, সেটা নিয়ে তাদেরকে জবাবদিহিতার মুখোমুখি করা উচিত গণমাধ্যমকে।

তারানা বলেন, ‘পৃথিবীর কোনো সভ্য গণতান্ত্রিক দেশে কেবল সরকারকে জবাবদিহি করতে হয় না। বিরোধী দলকেও এই জবাবদিহি করতে করতে হয় সেসব দেশে। কিন্তু আমাদেরকে কেবল সরকারকে সব প্রশ্নের জবাব দিতে হয়। কেন বিরোধী দলকে আপনারা প্রশ্ন করেন না।’

এ সময় বাংলাদেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ উৎক্ষপণের পর বিএনপির পক্ষ থেকে আসা নানা বক্তব্যের প্রতি ইঙ্গিত করে বক্তব্য রাখেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে ফেসবুকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের একটি ভিডিওর প্রসঙ্গও তোলেন তিনি। ওই ভিডিওতে তারেক দাবি করেন, জিয়াউর রহমান ১৯৮০ সালে রাষ্ট্রপতি থাকাকালে জার্মানির সঙ্গে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের বিষয়ে আলোচনা করেছিলেন।

তারানা বলেন, ‘বিরোধী দল কবে কোন ছেলের বাবা স্যাটেলাইটের স্বপ্ন দেখেছেন বলে নানা কথা বলে আপনারা কেন তাদেরকে প্রশ্ন করেন না? আমরা ছোট বেলায় তো কাগজে রকেট বানিয়ে উপরে মারতাম।…কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা ছোট বেলার রকেট খেলা খেলেননি, তিনি সত্যিকারের রকেট উৎক্ষেপণের মতো কঠিন কাজটি করেছেন।’

‘বিরোধী দলকেও প্রশ্ন করবেন কেন তারা জাতীয় গৌরবের অংশীদার হতে পারে না? তাহলে তারা কি ওই শক্তি যারা পাকিস্তান জিতলে খেলার মাঠে উল্লাস প্রকাশ করে?’

সংবাদ মাধ্যমের কণ্ঠরোধ করার তথাকথিত অভিযোগ নিয়ে যারা সোচ্চার তাদের কাছে টেলিভিশন টক শোতে দেয়া নানা বক্তব্য নিয়েও প্রশ্ন রাখেন তারানা।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কোনো সরকারের আমলে এমন উদার চিত্ত নিয়ে সত্য মিথ্যের মিশেলে কখনও এভাবে বলার স্বাধীনতা কখনও ভোগ করেছেন কি?’

‘অসত্য তথ্যের ওপর নির্ভর করেও ঘণ্টার পর ঘণ্টা টক শো হয়েছে।’

মালয়েশিয়ায় অর্থনৈতিক পরিবর্তন এসেছে যার হাত ধরে নেই মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গে অনেকেই শেখ হাসিনাকে তুলনা করেন জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মাহাথির মোহাম্মদকে তার বাবা হত্যার বিচার করতে হয়নি। মাহাথির মোহাম্মদকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করতে হয়নি। মাহাথির মোহাম্মদকে বিদেশে স্বজনকে হত্যার পর নির্বাসনে যেতে হয়নি।’