বিনোদনের পাতায় এক কোনে ছোট্ট করে ‘সেগুফতা আজমী’

কাল ভালবাসা দিবস! ভালবাসা দিবসে কি সাজ নিবেন, তার জন্য কোন দ্বিধা না রেখেই চায়ের কাপ হাতে নিয়ে আপনি সানন্দা কিংবা প্রথম আলোর নকশাতে চোখ বুলাচ্ছেন হয়তো। পরের মাসে প্রিয় ছোট বোনটার বিয়ে। বিয়ের পাত্র থেকে শুরু করে দিন মাস ক্ষন সব কিছুই ঠিক ঠাক, কিন্তু বোনকে ঠিক কিভাবে সাজাবেন তা নিয়ে কাজিনদের সাথে জল্পনা কল্পনার শেষ নেই। সন্দেহ নেই, ভাল কিছু সাজেশনের জন্যে এক্ষেত্রেও আপনি চোখ রাখতে ভুল করছেন না দেশের জনপ্রিয় ম্যাগাজিন গুলোর রঙীন পাতায়। শীত-গ্রীষ্ম কিংবা বসন্তের সাজ, এক নিমেষে এগুলো পেতেও আপনি ঠিকই নামিদামী পত্রিকার বিনোদন পাতাটা খুজে নিচ্ছেন। আর সেইসব বিনোদনের জমকালো পাতা রাঙানো মডেল লুকের এক কোনে ছোট্ট করে একটা নাম প্রায়ই খুজে পাওয়া যায় “মেকওভার বাই” হিসেবে; যা হয়তো অনেকেরই অলক্ষ্যে চলে যায়। এক মুহূর্তের জন্যে হলেও আপনার চোখ দুটোকে সেই বিনোদনের পাতায় আটকে রাখার জন্য পেছনে বসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজটা হয় মেকওভার সেশনে। বলছিলাম ‘উজ্জ্বলা স্টাইল আইকন ২০১৮’ কম্পিটিশনে মেকআপ এন্ড হেয়ার স্টাইলিং ক্যাটাগরীতে বিজয়ী ‘সেগুফতা আজমী’র কথা।

কমনীয়তা আর সরলতা যার মেকআপে মূল বিষয়বস্তু, সেখানে সাধারন কিংবা মডেলদের কাছে তার জনপ্রিয়তা তুঙ্গে থাকাটাই স্বাভাবিক। রংচটা মুখোশ তৈরির চাইতে প্রতিটা কাজে তুলির আচড়ে মোস্ট ন্যাচারাল লুক আনতে পারাটাই সেগুফতার কাছে মূখ্য।

 

“আমার কাছে প্রতিটা ব্রাইডাল মেক-ওভারই এক-একটা গল্পের মত, আমি সেই গল্পের ছবি আঁকি; চাইনা কারো গল্পটা বেদনা-বিধুর হোক।“ ৪ বছর ধরে দক্ষতার সাথে প্রোফেশনালিজম ধরে রাখা, আর কাস্টোমারদের কাছে আস্থার জায়গা করে নেয়ার পেছনে সেগুফতা’র গল্পটা এমনই ছিল।

কাস্টোমারের শতভাগ সন্তুষ্টি লাভ করাটাই ‘ওমেন্স ওয়ার্ল্ড’ আয়োজিত ‘ব্যাটল উইথ ব্রাশ’ আর ‘স্ট্রেক্স আনন্দধারা হেয়ার স্টাইলিং’ কম্পিটিশনে সেকেন্ড রানারআপ হওয়া সেগুফতা’র মূল লক্ষ্য থাকে। প্রতিটা ‘কনে’কেই সম্পূর্ন অনন্য লুক দিতে চাওয়া সেগুফতা দেশে বিউটি ইন্ডাস্ট্রিতে একটা বৈপ্লবিক ধারা আনতে চান।

ফ্রিল্যান্স থেকে পুরোদস্তুর প্রোফেশনাল মেকআপ আর্টিস্ট হয়ে ওঠার পেছনে ছোটবেলার শখটাই প্রেষনা যুগিয়েছে তাকে। ঢাকা সিটি কলেজ থেকে বিবিএ কমপ্লিট করলেও পেশা হিসেবে তিনি শখকেই প্রাধান্য দিয়েছেন। পরিবারের সম্পূর্ণ সমর্থন নিয়ে শুরু করা সেগুফতা’র এখন নিজেরই স্টুডিও আছে ধানমন্ডির কলাবাগানে। স্টুডিওতে ছাড়াও দেশের যে কোন জায়গাতে সময় মতন সার্ভিস পেতে অবশ্যই আপনাকে আগে থেকে বুকিং দিতে হবে “মেকওভার বাই সেগুফতা”র ফেসবুক পেইজে।