বিদায়ী মেয়রকে অযোগ্য বলে দায়িত্ব গ্রহণ করলেন কেসিসি’র নবনির্বাচিত মেয়র আ: খালেক

সাধন কুমার শীল, খুলনা থেকে : বিদায়ী মেয়রকে অযোগ্য বলে দায়িত্ব গ্রহণ করলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত (কেসিসি) মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আ: খালেক। তিনি বলেন, ‘বিদায়ী মেয়র এতটাই অযোগ্য আজকের অনুষ্ঠানের যে দাওয়াত কার্ড উনি ছাপিয়েছেন সেখানে উনার নিজের নামই বাদ পরেছে। নিজের অযোগ্যতা ঢাকতে তিনি (মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান) আজ এখানে উপস্থিত হননি।’

নবনির্বাচিত মেয়র বলেন, ‘সরকারের নামে তিনি মিথ্যাচার(মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান) করছেন। তার অযোগ্যতায় সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়নি। সরকার কোথাও বরাদ্ধে কম রাখেনি।’

কেসিসি’র কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে আ: খালেক বলেন, ‘সেবার মানসিকতা নিয়ে কাজ করবেন। নিজের ভাগ্য উন্নয়ন নিয়ে কাজ করলে আমার কাছ থেকে দূরে থাকবেন।’

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আটশত কোটি টাকার একটি প্রকল্প দিয়েছেন। খুলনাকে তিলোত্তমা নগরী গড়তে শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করে যাবেন বলে জানান নবনির্বাচিত এ মেয়র।

আজ মঙ্গলবার দায়িত্ব গ্রহণকালে তিনি উপরোক্ত কথাগুলি বলেন।

কেসিসি’র প্যানেল মেয়র মোঃ আনিছুর রহমান বিশ্বাষ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন,  রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন।

শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন, খুলনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ, বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান টুকু, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য ও খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান, খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য শেখ নুরুল হক, বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুন নাহার, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত যুগ্ম সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ লোকমান হোসেন মিয়া, কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পলাশ কান্তি বালা ও খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোঃ হুমায়ুন কবীর।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সাবেক সংসদ সদস্য মোল্লা জালাল উদ্দিন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ ফায়েক উজ্জামান, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন, খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ হেলাল হোসেন, পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ, খুলনা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. এনায়েত আলী, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মনিরুল হুদাসহ কেসিসি’র কাউন্সিলর, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, সরকারি কর্মকর্তা, কেসিসি’র কর্মকর্তা-কর্মচারী ও নগরীর গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

Inline
Inline