‘বিগ ব্রাদারসুলভ আচরণ পরিত্যাগ করুন’

ডেস্ক : ‘সংখ্যালঘুর মতো আচরণ সহ্য করবেন না’ জানিয়ে কওমি শিক্ষাসনদ স্বীকৃতি বাস্তবায়ন পরিষদ-এর সদস্য সচিব ও জামিআ আজমিয়া দারুল উলূম রামপুরা, ঢাকার শাইখুল হাদিস ও মুহতামিম ইয়াহইয়া মাহমুদ বলেন, বিগ ব্রাদারসুলভ আচরণ আমরা কোনোভাবেই মানতে পারি না। ছয় বোর্ডকে সমান মর্যাদায় হাইয়াতে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীন পরামর্শ দিয়েছিলেন পাঁচ বোর্ডের পক্ষ থেকে একজনকে কো-চেয়ারম্যান নেয়া হবে। পরিতাপের বিষয় হলো, প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের কথাকেও তোয়াক্কা না করে তারা নিজেদের মতো করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শনিবার দুপুর ২টায় কওমী শিক্ষাসনদ স্বীকৃতি বাস্তবায়ন পরিষদ আয়োজিত ‘কওমী মাদরাসার শিক্ষাসনদ স্বীকৃতি বাস্তবায়নে কতিপয় ব্যক্তির অশুভ তৎপরতার প্রতিবাদে ও অবিলম্বে সংসদে আইন করে কওমী মাদরাসা স্বীকৃতি প্রদানের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ এসব কথা বলেন।

শত শত লাশ ফেলে দেয়া ও সরকারি এই স্বীকৃতিকে পেশাবের সঙ্গে যারা তুলনা করেছিল- আজ তারাই চক্রান্ত করছে অভিযোগ করে মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ বলেন, সরকারি স্বীকৃতির নামে প্রতিষ্ঠিত হাইয়াতুল উলইয়ার কলকাঠি স্বীকৃতিবিরোধী পক্ষই নাড়াচ্ছে। বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার মিটিংকেই চালিয়ে দিচ্ছে হাইয়াতের মিটিং হিসেবে।

বেফাকের লোকজনই হায়াত চালাচ্ছে অভিযোগ করে মাওলানা ইয়াইয়া মাহমুদ বলেন, স্বীকৃতি বাস্তবায়নের পথে ঘাঁপটি মেরে থাকা সেসব ২০ দলীয় জোটের লোকেরাই স্বীকৃতিকে সরকারের একটি বুমেরাং কার্যক্রম হিসেবে দেখাতে চায়। তারা মূলত ২০ দলীয় জোটেরই এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে। তারা সরকারের সুফল ও সফলতাকে নষ্ট করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার দায়িত্বশীলরা অন্যান্য পাঁচ বোর্ডের সঙ্গে বিমাতাসুলভ, সংখ্যালঘুর মতো আচরণ করছে। তাদের আচরণেই প্রকাশ পায়- তারা মূলত স্বীকৃতির সুফল লাখো লাখো শিক্ষার্থীদের ভোগ করতে দিতে চান না।

সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত দাবিগুলো হচ্ছে-

১. কওমী মাদরাসার যে ছয় বোর্ডকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে প্রত্যেক বোর্ডকে সমান মর্যাদা দিতে হবে।

২. হাইয়াতুল উলইয়ার চেয়ারম্যান পদে যোগ্য হিসেবে পদায়নের শর্ত আরোপ করতে হবে।

৩. অন্তত বেফাক ছাড়া অন্যান্য বোর্ড থেকে দুজন কো-চেয়ারম্যান নিতে হবে।

৪. কোরাম পূরণে অন্যান্য বোর্ডের সদস্যদের আবশ্যকীয় হিসেবে ঘোষণা করতে হবে।