বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নিজেদের ওপরেই আস্থা নেই: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নেতারা সরকার ও রাষ্ট্রযন্ত্রের ওপর তাদের আস্থা নেই এমন কথা বলে প্রমাণ করেছেন যে, নিজেদের ওপরেই আস্থা নেই তাদের।’

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বর্ষীয়ান রাজনীতিক ‘সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের দ্বিতীয় প্রয়াণ দিবস’ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘গতকাল বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বলেছেন, কোনো নির্বাচনে তারা অংশগ্রহণ করবেন না। কারণ নির্বাচন কমিশন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ কারো ওপরেই তাদের আস্থা নেই। আসলে নিজেদের ওপরেই তাদের আস্থা নেই।’

এ সময় প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে একজন জনদরদী ও সৌজন্যবোধসম্পন্ন রাজনীতিক হিসেবে অভিহিত করে তিনি বলেন, ‘রাজনীতির মাঠে বিরোধ থাকে কিন্তু সৌজন্যতাও যে থাকে, প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত সে স্বাক্ষর রেখেছেন।’

প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের না যাওয়া প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, ‘শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সামাজিক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। দুঃখজনক যে, বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট নেতারা সেখানে জাননি, যাবেন না বলে চিঠিও দিয়েছেন। এতে প্রমাণ হয়, বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট নেতিবাচক রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি।’

‘ড. কামাল বিএনপিকে সৌজন্য শেখাবেন, ভেবেছিলাম কিন্তু তার পরিবর্তে তিনি বিএনপির অসৌজন্যে প্রভাবিত হয়েছেন,’ আক্ষেপ করেন তথ্যমন্ত্রী।

‘বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট নেতারা বলেছেন, আওয়ামী লীগ নাকি জনগণ থেকে দূরে সরে গেছে। আসলে দূরে সরে গেছে বিএনপিই’উল্লেখ করে মন্ত্রী প্রশ্ন করেন, ‘যারা মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করে, জনগণকে প্রতিপক্ষ করে, তাদের মানুষ কীভাবে ভোট দেবে?’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘নির্বাচন বর্জন, নির্বাচন প্রতিহত করার চক্রান্ত এবং নির্বাচনে অংশ নিয়েও প্রহসন করে বিএনপিই জনগণ থেকে দূরে সরে গেছে। আমি আশা করব, বিএনপি নির্বাচন বর্জন ও প্রতিহত করার চক্রান্তের পথ থেকে বেরিয়ে আসবে।’

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কার্যকরী সভাপতি প্রবীণ অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগ মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, বিশিষ্ট রাজনীতিক আজাদ খান, প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী রফিকুল আলম, চিত্রতারকা অরুণা বিশ্বাস, বিদ্যা সিনহা মীম, জেনিফার ফেরদৌস প্রমুখ রাজনীতিক সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত স্মরণে বক্তব্য দেন।