বাস-ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক : পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাস ও ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। রাজধানীর গাবতলী ও আশপাশ এলাকার কাউন্টারগুলোতে বাসের টিকিট এবং কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। তবে মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালকেন্দ্রিক বাস কোম্পানিগুলো তাৎক্ষণিক টিকিট বিক্রি করবে।শুক্রবার সকাল আটটা থেকে কমলাপুর রেলস্টেশনে বিভিন্ন গন্তব্যের ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়। বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি করবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।আজ দেয়া হচ্ছে ২৭ আগস্টের টিকিট। এছাড়া শনিবার (১৯ আগস্ট) ২৮ আগস্টের টিকিট বিক্রি হবে। রবি, সোম ও মঙ্গলবার যথাক্রমে ২৯, ৩০ ও ৩১ আগস্টের আগাম টিকিট পাওয়া যাবে।টিকিট নামক সোনার হরিণ পেতে গতকাল মধ্যরাত থেকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে অবস্থান নিয়েছে ঈদে ঘরমুখো টিকিট প্রত্যাশীরা।রাতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পুরো কমলাপুর স্টেশন লোকে লোকারণ্য। টিকিট প্রত্যাশীরা কেউ বারান্দায় আড্ডায় মেতে উঠেছে। এছাড়া কেউ ঘুমিয়ে, কেউ বসে গল্প-গুজবে আবার কেউ কার্ড খেলায় মেতে রয়েছে। তবে ভোরের দিকে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় আরও বাড়তে থাকে। সকাল আটটার দিকে ভিড় স্টেশনের প্লাটফর্ম ছাপিয়ে যায়।টিকিট নিতে আসা অনেকে জানিয়েছেন, প্রতিবছর টিকিটের জন্য রাত জেগে অপেক্ষা করার পরেও কালোবাজারিদের কারণে টিকিট পাওয়া যায় না। এবার এমনটি না হলে তারা খুশি হবেন।টিকিট কিনতে আসা বেসরকারি চাকুরে রফিকুল জানান, ‘লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট কাটতে এসেছি। রাত তিনটার দিকে লাইনে এসে দাঁড়িয়েছি। আগে স্ত্রী-সন্তানদের বাড়ি পাঠানো। এরপর নিজের জন্য ৩১ আগস্টের টিকিট কাটবো।একসঙ্গেই তো বাড়ি যেতে পারতেন এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘৩১ তারিখ অনেক ভিড় হবে। সেদিন ট্রেনে ওঠা কষ্টকর হবে। তাই স্ত্রী-সন্তানদের আগে পাঠাচ্ছি। এরপর নিজে যাব।’যে কোনো ধরনের বিশৃঙ্থলা ও কালোবাজারি রুখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।ট্রেনের মতো বাস কাউন্টারগুলোতেও ছিল জনস্রোত। টিকিট নিতে রাত থেকেই কাউন্টারগুলোর সামনে অবস্থান নেয় হাজারো মানুষ। রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনাল ছাড়াও কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, শ্যামলী, কলেজ গেটসহ বিভিন্ন স্থানের কাউন্টারে টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে।সরেজমিনে দেখা গেছে হানিফ এন্টারপ্রাইজ, সোহাগ পরিবহন, শ্যামলী পরিবহন, নাবিল পরিবহন, এসআর ট্রাভেলস কাউন্টারের সামনে ছিলো যাত্রীদের ভিড়।কয়েকজন বাস মালিকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এবার সবচেয়ে বেশি চাপ থাকবে ৩০ ও ৩১ আগস্ট। এই দুই দিন সবচেয়ে বেশি মানুষ ঢাকা ছাড়বেন। আবার কেউ কেউ ৩১ আগস্ট অফিস করেই ঢাকা ছাড়বেন। তাই এই দুই দিন সবচেয়ে বেশি চাপ থাকবে।রাস্তা খারাপ হওয়ায় এবারের ঈদে বাসের টিকিটের চাহিদা কম থাকবে বলে জানান অনেক মালিক। ঈদের আগেই বিভিন্ন স্থানে বাস সময়মতো গন্তব্যে যেতে পারছে না। এজন্য এবার ট্রেনের টিকিটে বেশি চাপ থাকবে বলে মনে করছেন তারা। যানজটের কারণে দীর্ঘ সময় রাস্তায় থাকার বিষয়টি মাথায় রেখে ট্রেনে যাত্রীদের বেশি ভিড় থাকবে বলে জানান তারা।