বার্সাকে জিততে দিল না লেভারকুজেন

ক্রীড়া ডেস্ক: গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচ। বেয়ার লেভারকুজেনের মাঠে আতিথ্য নেয় উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা। ইতিমধ্যে লিগের শেষ ষোলো নিশ্চিত করায় এবং পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান পাকাপোক্ত করায় এই ম্যাচটি বার্সার জন্য ছিল এক প্রকার আনুষ্ঠানিকতা।

কিন্তু লেভারকুজেনের জন্য ছিল বাঁচা-মরার লড়াই। এই ম্যাচে কাতালানদের বিপক্ষে জিততে পারলে ইতালিয়ান ক্লাব এএস রোমাকে পেছনে ফেলে শেষ ষোলোতে যাওয়ার ক্ষেত্রে বার্সেলোনার সঙ্গী হতে পারত জার্মানির ক্লাবটি।

কিন্তু বুধবার দিবাগত রাতে ঘরের মাঠে বার্সেলোনাকে চেপে ধরে ড্র আদায় করে নিতে পারলেও জয় ছিনিয়ে নিতে পারেনি। স্প্যানিশ জায়ান্টদের কাছ থেকে ১ পয়েন্ট নিয়েও ভাগ্য ফেরেনি তাদের। এএস রোমার সমান পয়েন্ট নিয়েও, এমন কী গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকেও নিয়মের গ্যাড়াকলে পড়ে শেষ ষোলতে স্থান করে নিতে পারেনি।

অবশ্য ঘরের মাঠে বুধবার দিবাগত রাতে বার্সেলোনার বিপক্ষে জয়ের দারুণ সুযোগ ছিল তাদের। বার্সা গোলরক্ষক স্টেগানকে বেশ ব্যতিব্যস্ত করে রাখলেও একটির বেশি বল তাকে ফাঁকি দিয়ে কাতালানদের জালে জড়াতে পারেনি লেভারকুজেন ।

লেভারকুজেনের মাঠ বে এরিনায় বুধবার অবশ্য প্রথমে লিড নেয় লুইস এনরিকের শিষ্যরা। ম্যাচের ২০ মিনিটে ইভান রাকেটিকের বাড়ানো বল থেকে গোল আদায় করে নেন লিওনেল মেসি (১-০)। তবে বেশিক্ষণ এগিয়ে থাকতে পারেনি তারা। ম্যাচের ২৩ মিনিটে লেভারকুজেনের জাভিয়ের হার্নান্দেজ গোল করে ম্যাচে সমতা ফেরান। বাদবাকি সময়ে এই সমতা আর কেউ ভাঙতে পারেনি।

বার্সার বিপক্ষে এই ম্যাচে জয় পেতে কতোটা মরিয়া ছিল জার্মান ক্লাবটি তা পরিসংখ্যান দেখলে স্পষ্ট বোঝা যায়। ম্যাচে বল দখলের দিক দিয়ে বার্সার প্রায় সমান সমান ছিল লেভারকুজেন (৪৯% ও ৫১%)। যেখানে বার্সেলোনা গোলপোস্টে শট নিয়েছে মাত্র ৬টি, সেখানে লেভারকুজের শট নিয়েছে ২৬টি। তার মধ্যে ১০টিই ছিল গোলমুখে। কিন্তু একটির বেশি বল তারা জালে জড়াতে পারেনি। লেভারকুজেন ৬টি কর্নার পায়। অন্যদিকে বার্সা মাত্র ১টি।

তবে ফাউল করার দিক দিয়ে বার্সেলোনা এগিয়ে ছিল। বার্সার ফাউল ১৩টি। লেভারকুজেনের ১০টি। হলুদ কার্ড কাতালানরা দেখেছে ৩টি। জার্মান ক্লাবটি দেখেছে ১টি। লেভারকুজেনের গোলরক্ষক মাত্র একটি অন টার্গেটের বল ঠেকিয়ে দিতে পেরেছেন। অন্যদিকে বার্সা গোলরক্ষক ৯টি অন টার্গেটের বল ঠেকিয়ে দিয়ে দলকে রক্ষা করেছেন।

Leave a Reply