বাংলাদেশের লজ্জার দিনে ১৫৮ রানের লিড ক্যারিবীয়দের

ক্রীড়া ডেস্ক : ব্যাটিংয়ে মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়ে লজ্জার রেকর্ড গড়ার পর বোলিংটাও ভালো হয়নি বাংলাদেশের। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের প্রথম দিন শেষে ১৫৮ রানের লিডে আছে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাদের হাতে আছে আটটি উইকেট। বুধবার বাংলাদেশকে ৪৩ রানে অলআউট করে দেয়ার পর ক্যারিবীয়রা তাদের প্রথম ইনিংসের ব্যাট করতে নেমে দুই উইকেটে ২০১ রান সংগ্রহ করেছে দিনের খেলা শেষ করেছে।

দিন শেষে ক্যারিবীয় ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ৮৮ রান করে অপরাজিত আছেন। এক রান করে অপরাজিত আছেন দেবেন্দ্র বিশু। ৫৮ রান করে আউট হন ডেভন স্মিথ। ৪৮ রান করে আউট হন কাইরান পাওয়েল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের যে দুইটি উইকেট পড়েছে তার মধ্যে একটি নিয়েছেন আবু জায়েদ রাহি। অপরটি নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ওপেনিং জুটিতে ১১৩ রানের জুটি গড়েন ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ও ডেভন স্মিথ। উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানের হাতে ক্যাচ বানিয়ে ডেভন স্মিথকে ফিরিয়ে দিয়ে এই জুটি ভাঙেন আবু জায়েদ রাহি। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান যখন ১৯৪ তখন লিটন দাসের হাতে ক্যাচ বানিয়ে কাইরান পাওয়েলকে ফেরান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় শুরু হবে ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের খেলা।

বুধবার শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ। এদিন সকালে টস হেরে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়ে যায় টাইগাররা। এই রান করতে ১৮.৪ ওভার ব্যাট করেছে বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেটে এক ইনিংসে বাংলাদেশের এটি সর্বনিম্ন ইনিংস। এর আগে টেস্টে বাংলাদেশের সর্বনিম্ন রানের ইনিংসটি ছিল ৬২ রানের। ২০০৭ সালে কলম্বোতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই রান করেছিল বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রান হলো ২৬। ১৯৫৫ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই রান করেছিল কিউইরা।

দলের পক্ষে একজন মাত্র ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের ঘরে রান করতে পেরেছেন। সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন লিটন দাস। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ছয় রান করে অপরাজিত থাকেন রুবেল হোসেন। শূন্য রানে আউট হয়েছেন চারজন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মধ্যে পাঁচ ওভার বল করে আট রান দিয়ে পাঁচটি উইকেট শিকার করেছেন কেমার রোচ। চার ওভারে ১১ রান দিয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেছেন মিগুয়েল কামিন্স। ৪.৪ ওভার বল করে দশ রান দিয়ে দুইটি উইকেট শিকার করেছেন জ্যাসন হোল্ডার।

অ্যান্টিগায় ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে টাইগাররা। দলীয় দশ রানে কেমার রোচের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন তামিম ইকবাল। তিনি করেন চার রান। এরপর দলীয় ১৬ রানে কেমার রোচের বলে স্লিপে শাই হোপের হাতে ধরা পড়েন মুমিনুল হক। তিনি করেন এক রান।

তারপর নবম ওভারে বোলিংয়ে এসে মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে ফেরান কেমার রোচ। ওভারের দ্বিতীয় বলে এলবিডব্লিউ হন মুশফিকুর রহিম। রিভিউ নিয়েও তিনি বাঁচতে পারেননি। চতুর্থ বলে স্লিপে জ্যাসন হোল্ডারের হাতে ধরা পড়েন সাকিব আল হাসান। পঞ্চম বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এই তিনজনই শূন্য রানে আউট হয়েছেন।

দলীয় ১৮ রানে পাঁচটি উইকেট পড়ে যাওয়ার পর লিটন দাসের সঙ্গে জুটি বাঁধেন নুরুল হাসান সোহান। কিন্তু এই জুটিও বেশি দূর যেতে পারেনি। দলীয় ৩৪ রানে ফিরে যান তারা দুজন। মিগুয়েল কামিন্সের করা ইনিংসের ১৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে উড়িয়ে মারেন লিটন দাস। বলটি গিয়ে জমা পড়ে রস্টন চেজের হাতে। তিনি করেন ২৫ রান। একই ওভারের ষষ্ঠ বলে স্লিপে জ্যাসন হোল্ডারের হাতে ধরা পড়েছেন নুরুল হাসান সোহান। তিনি করেছেন চার রান।

দলীয় ৩৫ রানে মিগুয়েল কামিন্সের বলে স্লিপে ডেভন স্মিথের হাতে ক্যাচ হন মেহেদী হাসান মিরাজ। এক রান করেন তিনি। দলীয় ৩৫ রানেই ফিরে যান কামরুল ইসলাম রাব্বীও। উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন তিনি। রাব্বী করেন শূন্য রান। দলীয় ৪৩ রানে জ্যাসন হোল্ডারের বলে বোল্ড হন আবু জায়েদ রাহি।

এই ম্যাচের মাধ্যমে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হলো টাইগার পেসার আবু জায়েদ রাহির। বাংলাদেশ জাতীয় দলে ৮৮তম খেলোয়াড় হিসাবে টেস্টে তার অভিষেক হলো। অর্থাৎ, টেস্টে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে এর আগে ৮৭ জন খেলোয়াড়ের অভিষেক হয়েছে।

দ্বিতীয় মেয়াদে টেস্টে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়ার এই ম্যাচে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাকিব আল হাসান। এই ম্যাচে একাদশে তিন পেসার নিয়ে খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ। স্পিনার হিসাবে আছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। মুশফিকুর রহিম খেলছেন বিশেষ ব্যাটসম্যান হিসাবে। একাদশ থেকে বাদ পড়েছেন ওপেনার ইমরুল কায়েস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

প্রথম দিন শেষে ১৫৮ রানের লিডে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশ ইনিংস: ৪৩ (১৮.৪ ওভার)

(তামিম ইকবাল ৪, লিটন দাস ২৫, মুমিনুল হক ১, মুশফিকুর রহিম ০, সাকিব আল হাসান ০, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০, নুরুল হাসান সোহান ৪, মেহেদী হাসান মিরাজ ১, কামরুল ইসলাম রাব্বী ০, রুবেল হোসেন ৬*, আবু জায়েদ রাহি ২; কেমার রোচ ৫/৮, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ০/১৪, জ্যাসন হোল্ডার ২/১০, মিগুয়েল কামিন্স ৩/১১)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ২০১/২ (৬৮ ওভার)

(ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ৮৮*, ডেভন স্মিথ ৫৮, কাইরান পাওয়েল ৪৮, দেবেন্দ্র বিশু ১*; আবু জায়েদ রাহি ১/৫৫, রুবেল হোসেন ০/২৪, কামরুল ইসলাম রাব্বী ০/৪৫, সাকিব আল হাসান ০/২২, মেহেদী হাসান মিরাজ ০/৪৬, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১/৬)।