বাঁদরের উপদ্রবেই ক্ষতিগ্রস্ত তাজমহল

সম্রাট শাহজাহান তার স্ত্রীকে অনেক ভালোবেসে তাজমহল নির্মান করেছিলেন নিদর্শন স্বরূপ। কিন্তু তার সাধের তাজমহলের মিনারে বড়সড় ক্ষত দেখা দিয়েছে।

সম্প্রতি মিনারের সৌন্দর্য বৃদ্ধির কাজ করতে গিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিম মিনারের গম্বুজটির ভগ্নদশা চোখে পড়ে কর্মীদের। এরপরই গম্বুজটি ভেঙে পড়তে পারে বলে তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেন। যদিও ‘আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া’র তরফে আশ্বাস দেয়া হয়েছে, গম্বুজটি পড়বে না।

তাজমহলের সৌন্দর্য অটুট রাখতে তিনটি মিনারে রাসায়নিক দিয়ে পরিষ্কার করার কাজ চলছিল। এ কাজ চলাকালীন সময়ে গম্বুজটির ভগ্নদশা কর্মীদের নজরে আসে।

প্রত্নতাত্বিক বিশেষজ্ঞদের মনে করছেন, বাঁদরের উপদ্রবেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে গম্বুজটি। আপাতত সে মিনারটিকে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। খুব দ্রুত সেটিকে ঠিক করে দেয়া হবে বলেও আশ্বাস দেয়া হয়েছে৷

অতিরিক্ত পরিবেশ দূষণের ফলে তাজমহল তার স্বাভাবিক ঔজ্জ্বল্য হারিয়ে ফেলেছিল। তা রোধ করতেই রাসায়নিক দিয়ে পরিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

আসছে ১৬ এপ্রিল প্রিন্স উইলিয়াম, কেট মিডলটনসহ বেশ কয়েকজন বড় মাপের পর্যটক আসবেন তাজমহল প্রদর্শনে। তার আগে জোরকদমে চলছিল সৌন্দর্য বৃদ্ধির প্রক্রিয়া।

এ কাজ করতে গিয়ে সবার নজরে আসে বানরের কীর্তি। এটা নজরে পড়ায় শাপে বর হয়েছে বলা চলে। এতে আন্তর্জাতিক বিখ্যাত পর্যটকদের সামনে মুখ পুড়ল না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।