বঙ্গবন্ধুর রক্তের সঙ্গে বেইমানির ক্ষমা নেই : সেলিম

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে যারা বেইমানি করেছে জনগণ তাদের ক্ষমা করবে না। বিশ্বের ইতিহাসে এহেন নিকৃষ্ট হত্যাকাণ্ড যারা ঘটিয়েছে তারা কেউ রেহাই পাবে না।’
সোমবার গোপালগঞ্জে একটি অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব চক্ষু ও বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট আয়োজিত ডিস্ট্রিক আই কেয়ার প্রোগ্রাম ভিশন বাংলাদেশের আওতায় ‘চক্ষু স্বাস্থ্য পরিচর্যা বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি’ বিষয়ক কর্মশালার প্রধান অতিথি ছিলেন শেখ সেলিম।
শেখ সেলিম বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া পাকিস্তানের এজেন্ট। বিএনপি তাদের আমলে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমকে পাকিস্থান থেকে ফিরিয়ে এনে তাকে এদেশে নাগরিকত্ব দিয়ে প্রতিষ্ঠিত করেছে।’
আওয়ামী লীগের আমলে সব ক্ষেত্রের মতো স্বাস্থ্যসেবায় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে সাবেক এই স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে দেশব্যাপী যে উন্নয়ন হয়েছে এর ধারাবাহিকতায় গোপালগঞ্জে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। অন্য যেকোনো সরকারের আমলে গোপালগঞ্জ নিগৃহীত, অবহেলিত হয়, আর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে উন্নয়ন হয়। এর ধারাবাহিকতায় ১৫ একর জায়গার উপর ১৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এই চক্ষু ইনস্টিটিউটটি দক্ষিণবঙ্গের মানুষের চক্ষুসেবার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্মাণ করেছেন।’
সাইটসেভার্স এর সহযোগিতায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব চক্ষু ও বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের পরিচালক ডা. সাইফুদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও বক্তব্য দেন গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চৌধুরী এমদাদুল হক, সাংসদপুত্র শেখ ফজলে নাইম ও শেখ ফজলে ফাইম, সাইটসেভার্স এর কান্ট্রি ডিরেক্টর খন্দকার আরিফুল ইসলাম, মমিনুল ইসলাম প্রমূখ।
প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন। ওই বছর ১৯ আগস্ট থেকে বহির্বিভাগ, ২০১৬ সালের ১ মার্চ আন্তঃ বিভাগ ও অপারেশন কার্যক্রম চালু হয়। শুরু থেকে চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত এক লাখ ৬৮ হাজার ৭১০ জন চোখের রোগীকে বহির্বিভাগে সেবা প্রদান ও চার হাজার ৭৯৭ জন রোগীর চোখের অপারেশন করা হয়। এছাড়া আউট রিচ ক্যাম্পের মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ১০টি ক্যাম্প পরিচালনার মধ্যমে প্রায় পাঁচ হাজার রোগীকে চক্ষুসেবা প্রদান করা হয়।