বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফেরাতে সরকার বদ্ধপরিকর: আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুদের পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করার জন্য আওয়ামী লীগ ও বর্তমান সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা বদ্ধ পরিকর। ইনশাআল্লাহ এটা করা হবে।’মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা, দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।সংবিধানের ষোড়শ সংশোধীর রায় প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘রায় নিয়ে প্রধান বিচারপতি ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নেবে না আইন মন্ত্রণালয়। তবে আদালতের রায়কে আইনগতভাবে মোকাবেলা করা হবে।’আইনমন্ত্রী বলেন, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, জাতীয় সংসদের স্পিকার ও প্রধান বিচারপতির আসন সাংবিধানিক আসন। এগুলো সম্বন্ধে কথা বলতে সাবধানে বলতে হবে। ব্যবস্থা নিতেও অনেক চিন্তা ভাবনা করে নিতে হবে।’আনিসুল হক বলেন, ‘বিএনপি যারা করেন। যিনি বিএনপির প্রধানসহ তারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না। তারা নিজেদেরকে মনে করেন তারা বাংলাদেশের সব আইনের ঊর্ধ্বে। যারা প্রতিনিয়ত আইন ভঙ্গ করেন তারা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এটা বিশ্বাস হয় না।’মন্ত্রী বলেন, ‘ষোড়শ সংশোধীর রায় নিয়ে বিএনপি কী বললো না বললো তাতে আমাদের কিছু আসে যায় না। তাদের কথা বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বাস করে না। এই রায়েই বলা আছে জিয়াউর রহমান এবং এরশাদ বাংলাদেশটাকে একটা ব্যানানা রিপাবলিক (বিশৃঙ্খল রাষ্ট্র) বানিয়েছিলেন। এই রায়ে সত্যকথা এটুকু আছে ব্যানানা রিপাবলিক বানিয়েছিলেন ওনারা। আসুন আমরা শপথ নেই ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট যে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে বাংলাদেশকে শেষ করে দেয়ার ষড়যন্ত্র হয়েছিল সেই ষড়যন্ত্র যেন আর না হতে পারে সেই জন্য ঐক্যবদ্ধ হই।’বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কাসেম ভূইয়া, মো. সেলিম ভূইয়া, মনির হোসেন বাবুল, পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, ছাত্রলীগের সভাপতি তানজিল শাহ, সহ সভাপতি শামীম মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক মো. শরীফুল ইসলাম প্রমুখ। এর আগে মন্ত্রী উপজেলা আওয়ামী লীগের শোক র‌্যালিতে অংশ নেন।এদিকে দুপুরে আইনমন্ত্রী আখাউড়া স্থলবন্দর এলাকায় গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার খোঁজখবর নেন।