বগুড়ার গাবতলীতে হত্যার উদেশ্যে মারপিটে কৃষক জখম, গ্রেফতার ১

বগুড়া জেলা সংবাদদাতাঃ বগুড়ার গাবতলী দূর্গাহাটা শিলদহবাড়ী পূর্বপাড়া গ্রামে জমিজমা বিরোধ ও সীমানা প্রাচীর নির্মানকে কেন্দ্র করে হত্যার উদেশ্যে মারপিটে এক অসহায় কৃষক ইমদাদুল হক’কে গুরুত্বর ভাবে জখম করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হলে পুলিশ অভিযুক্ত ১জন কে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরন করেছে।

মামলা সূত্র জানায়, দূর্গাহাটা ইউনিয়নের শিলদহবাড়ী পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলী সরকারের পুত্র ইমদাদুল হক দীর্ঘ ১৫বছর যাবত বসতবাড়ী জমির উপর টিনসেট ঘর নির্মান করে বসবাস করে আসছে। কিন্তু ইমদাদুল সেই টিনসেট ঘর মেরামত ও দেয়াল (সীমানা প্রাচীর) নির্মান কাজ করছিল। এরপর ৮শতক জমি ভোগদখল নিয়ে বিরোধের জেরধরে গতশুক্রবার সন্ধ্যা’য় একই গ্রামের এনামুল, ইলিয়াছ, শেফালী, মাইদুল ও শাহীন পূর্বপরিকল্পিত ভাবে লাটিসোটা, লোহার রড়, সাবল, হাসুয়া’সহ দেশীয় অস্ত্রেসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তার বসতবাড়ীতে গিয়ে নির্মান কাজে বাঁধা দেয় এবং জোরপূর্বক ১লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। ইমদাদুল চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে প্রতিপক্ষরা ইমদাদুলের নির্মিত ইটের তৈরী প্রাচীর ভাঙ্গিয়ে ফেলে। এতে করে তার ৭০হাজার টাকা ক্ষতি সাধিত হয়। এসময় ইমদাদুল বাঁধা দিতে গেলে তাকে হত্যার উদেশ্যে আঘাত ও এলোপাথারী ভাবে মারপিটে গুরুত্বর ভাবে জখম করে। এরপর প্রতিপক্ষরা ইমদাদুলের পরিবারের সদস্যদের ভয়ভীতি ও জীবননাশের হুমকি-ধামকি দিয়ে চলে যায় বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। আহত অবস্থায় ইমদাদুল’কে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অবশেষে ইমদাদুল হক বাদী হয়ে এনামুল’কে প্রধান আসামী’সহ ইলিয়াছ, শেফালী, মাইদুল ও শাহীন কে আসামী করে গাবতলী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং-২০/১৮ইং। পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ইলিয়াছ’কে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরন করেছে। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আহসানুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় এখনো তদন্ত চলছে। আসামীদের গ্রেফতার করতে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।