বগুড়ার গাবতলীতে প্রতিপক্ষের মারপিটে যুবকের মৃত্যু

আল আমিন মন্ডল, বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ার গাবতলীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের মারপিটে গুরুত্বর আহত অবস্থায় সোমবার ভোর রাতে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। গতরবিবার উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের দড়িপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৮জনকে অভিযুক্ত করলে থানা পুলিশ ৪জনকে গ্রেফতার করেছে। জানা গেছে, গত রবিবার সকাল ১০টায় উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের দড়িপাড়া গ্রামের ফটু মোল্লার বাঁশের করুল টানা হেচরা করে একই গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে মিনার (০৮)। এতে ফটু মোল্লা মিনারকে বকাবকি করে। এরই জের ধরে ওইদিন রাত ১০টায় ফটু মোল্লার ছেলে আঃ সালাম (১৪) বাড়ী থেকে পার্শ্ববর্তী মেশিন ঘরে যাচ্ছিল। এ সময় পূর্বে ঔঁত পেতে থাকা মোস্তাফিজুর রহমান ও তার দলবল সালামের পথরোধ করে। পরে সালামকে বেঁধে মোস্তাফিজুর রহমানের বাড়ীতে নিয়ে আটকে রেখে লোহার রড, সাবল, বাঁশের লাঠি, ও কাঠের বাটাম দিয়ে এলোপাতারী আঘাত করে গুরুত্বর জখম করে। তাদের মারপিটে সালাম অজ্ঞান হয়ে পড়লে রক্তাক্ত অবস্থায় মৃত্য ভেবে বাড়ীর পার্শ্বে একটি খরের পালায় কাছে ফেলে রেখে যায়। সালামের চিৎকারে তাঁর বাবা, চাচা ও ভাই মোস্তাফিজুর রহমানের বাড়ীতে গেলে তাদেরকেও লোহার রড, সাবল, বাঁশের রাঠি দিয়ে বেদমভাবে মারপিট করে গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম করে। গুরুত্বর আহত সালামকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হলে গতকাল সোমবার ভোররাতে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহত সালামের বড়ভাই বাদী হয়ে মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান অভিযুক্ত ৮জনের নামে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত ৪জনকে গ্রেফতার করেছে। এ ব্যাপারে থানার ওসি খায়রুল বাসার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ৪জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যান্যদের গ্রেফতার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।