বক্স অফিসের ‘সুপার হিরো’ শাকিব খানই

বিনোদন প্রতিবেদক : ঈদুল ফিতরের দিনে সারাদেশে মুক্তি পেয়েছে পাঁচটি সিনেমা। যার মধ্যে বক্সঅফিস খ্যাত কাকরাইল পাড়ায় ইতিমধ্যে নিজের রাজত্ব কায়েম করেছে ঢালিউডের সুপারস্টার শাকিব খান অভিনীত সিনেমা ‘সুপার হিরো’। ঈদুল ফিতর মানেই প্রেক্ষাগৃহে তার সিনেমার দাপট। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে ঢালিউডে অলিখিতভাবে এমন নিয়মই চলে আসছে। এবারেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি।

এবারের ঈদুল ফিতরে মুক্তি পেয়েছে শাকিব খান অভিনীত তিনটি সিনেমা। সেগুলো হচ্ছে আশিকুর রহমান আশিক পরিচালিত ‘সুপার হিরো’, উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘চিটাগাংইয়া পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ ও আব্দুল মান্নান পরিচালিত ‘পাঙ্কু জামাই’। যার মধ্যে ‘সুপার হিরো’ ও ‘চিটাগাংইয়া পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ সিনেমা দুটিতে শবনম বুবলি এবং ‘পাঙ্কু জামাই’ সিনেমায় আলোচিত নায়িকা অপু বিশ্বাস শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন।

অন্যদিকে রয়েছে রায়হান রাফি পরিচালিত ‘পোড়ামন-টু’ এবং নুর ইসলাম মিঠু পরিচালিত ‘কমলা রকেট’ সিনেমা দুটিও। এর মধ্যে ‘পোড়ামন-টু’ সিনেমায় জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় মুখ সিয়াম আহমেদ ও চিত্রনায়িকা পূজা চেরি। ‘কমলা রকেট’-এ রয়েছেন অভিনেতা ও চলচ্চিত্র নির্মাতা তৌকির আহমেদ, মোশাররফ করিম ও লাক্স তারকা সামিয়া সাঈদ।

তবে বক্স অফিসে ঈদের কোন সিনেমার কি অবস্থান বা কি চিত্র, তা ইতিমধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহের ব্যবস্থাপক, প্রেক্ষাগৃহ কর্মকর্তা ও প্রেক্ষাগৃহে আগত দর্শকদের সঙ্গে কথা বলে স্পস্ট হয়ে উঠেছে। ঈদে মুক্তি প্রাপ্ত সিনেমাগুলোর মধ্যে সংখ্যার দিক থেকে এগিয়ে আছেন ‘চিটাগাংইয়া পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ সিনেমাটি। রাজধানী ঢাকার মধ্যে সনি, জোনাকি, চিত্রামহল, গীত ও অভিসারসহ সারাদেশের মোট ১৩৩টির প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে শাকিব খান ও বুবলি অভিনীত এই সিনেমাটি।

তবে সিনেমাটি গড়পড়তা ব্যবসা করেছেন বলেই দাবি করলেন অভিসার প্রেক্ষাগৃহের ব্যবস্থাপক খাইরুল কবির। তিনি বলেন, ‘সিনেমাটি প্রত্যাশামাফিক তেমন বেশি একটা দর্শক টানতে পারেনি। শাকিবের যেহেতু একটা নির্দিষ্ট দর্শক শ্রেণি রয়েছে, সেহেতু সেই নিয়মিত দর্শকরাই তার সিনেমাগুলো দেখেন। এবার শাকিব অভিনীত তিনটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। তাই কিছু দর্শক ভাগ হয়ে গেছে। তবে এখনো সিনেমার নিয়মিত দর্শকদের অনেকেই ঢাকায় বাইরে রয়েছেন। তারা ঢাকা ফিরে আসলে হয়ত আগামী কয়েক দিনে টিকেট বিক্রি জমে উঠতে পারে।’

কিন্তু সিনেমাকে ঘিরে বেশ হতাশার সুরেই নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন জোনাকি প্রেক্ষাগৃহে আগত পোশাক প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত বেশ কয়েকজন তরুন দর্শক। সিনেমাটি মোটেও পয়সা উসুল সিনেমা নয়। এর চেয়ে অন্য সিনেমা দেখলেও ভালো হত, এমনটাই তাদের ভাষ্য।

অন্যদিকে ঢাকার মধুমিতা, আনন্দ, শাহীন, যমুনা ব্লকবাস্টার সিনেমাসহ সারাদেশের ৭৮টি প্রেক্ষাগৃহ মুক্তি পেয়েছে ‘সুপার হিরো’ সিনেমাটি। মুক্তির প্রথম দিন থেকেই যে বক্স অফিসে সিনেমাটি বাজীমাত করেছে তা স্পস্ট ফুটে উঠেছে মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহের ব্যবস্থাপক রেজাউল করিমের কথায়। তিনি বলেন, ‘ঈদের দিন থেকেই সিনেমাটি বেশ ভালো দর্শক টানতে সক্ষম হয়েছে। আমাদের প্রতিদিন স্পেশাল শো, ম্যাটিনি শো, ইভিনিং শো ও নাইট শো- এই চারটি মধ্যে ম্যাটিনি শো, ইভিনিং শো টানা হাউজফুল হয়েছে। বিশেষ করে বিশ্বকাপ চললেও এর কোনো নেতিবাচক প্রভাব আমাদের প্রেক্ষাগৃহে পড়েনি।’

তবে সিনেমাটি যে সকল শ্রেণির দর্শকদের হৃদয় জয় করেছে তা পরিস্কারভাবে ফুটে উঠেছে যমুনা ব্লকবাস্টার সিনেমাসে আগত একদল শিক্ষার্থীর কথায়। রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা সবাই এক বাক্যে বললেন, ‘শাকিব খান ‘সুপার হিরো’ সিনেমার মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন তিনিই ঢাকাই সিনেমার একমাত্র সুপার হিরো। আর বিকল্প এখনও কেউ তৈরি হয়নি।

ঢাকার মধ্যে একমাত্র রাজমনি প্রেক্ষাগৃহসহ সারাদেশের আটটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘পাঙ্কু জামাই’ সিনেমাটি। তবে ‘সিনেমার টিকেট বিক্রির অবস্থা খুবই বাজে। দর্শকরাও সিনেমাটিতে খুব ভালোভাবে গ্রহণ করেননি। এমনটাই জানালেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজমনি প্রেক্ষাগৃহের এক কর্মচারী।

অন্যদিকে ঢাকার বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্স, বলাকা সিনেওর্য়াল্ড, শ্যামলী সিনেপ্লেক্সসহ সারাদেশের ২২টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘পোড়ামন-টু’ সিনেমাটি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত স্টার সিনেপ্লেক্স প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘কমলা রকেট’ সিনেমাটিও। তবে এই দুটোর মধ্যে তুলনামুলকভাবে ‘পোড়ামন-টু’ সিনেমাটির প্রতিটি শো হাউজফুল হচ্ছে। এমনটাই দাবি করলেন ঢাকার বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সর ব্যবস্থাপনা (মিডিয়া ও বিপণন) পরিচালক মেছবাহ উদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘পোড়ামন-টু’ ও ‘কমলা রকেট’ সিনেমার দুটির দর্শক আমাদের এখানে বেশি। এই দুটো সিনেমারই বেশ ভালো দর্শক রয়েছে। তবে যদি তুলনা করতে হয় তাহলে মঙ্গলবার পর্যন্ত সেক্ষেত্রে ‘পোড়ামন-টু-এর টিকেটের চাহিদাই সবচেয়ে বেশি। কারণ এর প্রতিটি প্রদর্শণী শো হাউজফুল হচ্ছে।’

Inline
Inline