ফিলিস্তিনে প্রতিশ্রুত আর্থিক সহায়তার পরিমাণ কমালো যুক্তরাষ্ট্র

ফিলিস্তিনিদের সাহায্যে গঠিত জাতিসংঘের ত্রাণ তহবিলে প্রতিশ্রুত আর্থিক সহায়তার পরিমাণ অর্ধেকে নামিয়ে এনেছে যুক্তরাষ্ট্র। বাকি অর্থ দেয়া হবে কি না, তা ভবিষ্যতে বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। খবর বিবিসির।

এ বছর অর্থনৈতিক সহায়তা হিসেবে সাড়ে ১২ কোটি ডলার দেয়ার কথা থাকলেও এখন তার অর্ধেকেরও বেশি পরিমাণ অর্থ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন।

যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব।

ফিলিস্তিনিদের সহায়তার জন্য গড়া জাতিসংঘ তহবিলে এ বছর সাড়ে ১২ কোটি মার্কিন ডলার অর্থনৈতিক সাহায্য দেয়ার কথা যুক্তরাষ্ট্রের।

যুক্তরাষ্ট্র এখন বলছে, জাতিসংঘকে ৬০ মিলিয়ন ডলার পাঠানো হবে। কিন্তু বাকি ৬৫ মিলিয়ন ডলার দেয়া হবে কি না, তা ভবিষ্যতে বিবেচনা করা হবে।

মার্কিন এই সিদ্ধান্তের ফলে, ফিলিস্তিনে চলমান ত্রাণ কার্যক্রম অর্থসংকটে পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন জাতিসংঘের কর্মকর্তারা।

এতে উদ্বেগ জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুটেরেস।

এক সংবাদ সম্মেলনে গুটেরেস বলছেন, জাতিসংঘ ফিলিস্তিনে যে সব অতি প্রয়োজনীয় ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করছিলো সেগুলো চালিয়ে যেতে না পারলে, গুরুতর সংকট তৈরির আশঙ্কা রয়েছে।

ফলে সেই পরিস্থিতি এড়াতে জাতিসংঘ সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

ফিলিস্তিনিদের জন্য জাতিসংঘের ত্রাণ কার্যক্রমের প্রায় ৩০ শতাংশ অর্থ আসে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে। এই বাজেটেই স্বাস্থ্য ও শিক্ষাসহ অন্যান্য সেবামূলক কার্যক্রম সরবরাহ করা হয়।

তবে, যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র হিথার নিউয়ার্ট বলেছেন, কাউকে শাস্তি দেয়ার উদ্দেশ্যে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। বরং এই সংস্থায় যুক্তরাষ্ট্র কিছু সংস্কার দেখতে চায় বলেই এটি করেছে।

Inline
Inline