‘ফাইজলামি’র একটা সীমা আছে : রায় নিয়ে আমু

নিজস্ব প্রতিবেদক : সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার রায়ের পর্যবেক্ষণ নিয়ে প্রধান বিচারপতিকে লক্ষ্য করে ক্ষমতাসীন দলের তীর্যক বক্তব্য অব্যাহত আছে। দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, প্রধান বিচারপতি রাষ্ট্রের ক্ষমতা নিয়ে নিতে চায়। এইসব ফাইজলামির একটা সীমা আছে। এইসব ঔদ্ধত্য দেখানোর একটা সীমা আছে। রায়ে সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্যদের প্রতি অবমাননাকর বক্তব্যের অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীতে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন আমু। আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুব মহিলা লীগ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসূচির আয়োজন করে। আমু বলেন, অন্য বিচারপতিদের মনে রাখা দরকার উনি (প্রধান বিচারপতি) যা চান তা হল ওই জুডিশিয়ালি, ওই বিচারকদের একমাত্র দেবতা। তিনি যা বলবেন সেটাই মানতে হবে। সব ক্ষমতা তার হাতে থাকবে, এর বাইরে কিছু থাকবে না। আজকে সেই ব্যবস্থা আমরা বিচার বিভাগে হতে দিতে পারি না। প্রধান বিচারপতিকে শিল্পমন্ত্রী বলেন সংসদের বিরুদ্ধে কথা বলার আগে আপনার ভাবা উচিত ছিল এই সংসদের মাধ্যেমেই আপনার নিয়োগ। এই সংসদের রাষ্ট্রপতিই আপনাকে নিয়োগ দিয়েছে। আজকে সেদিকে চিন্তা রেখে ভবিষ্যতে কথা বলবেন। এই দেশের বিরুদ্ধে যে কথা বলেছেন তা প্রত্যাখ্যান করতে হবে, এক্সপান্স করতে না হয় এইদেশের মানুষ এগিয়ে আসবে। প্রধান বিচারপতি পাকিস্তানের উদাহরণ দিয়ে ‘ঔদ্ধত্য’ দেখিয়েছেন বলেও মন্তব্য করেন আমু। এই উদাহরণ দিয়ে প্রধান বিচারপতি শেখ হাসিনাকে ভয় দেখাতে চাইছেন কি না সে প্রশ্নও রাখেন তিনি। বলেন, ‘তাকে (প্রধান বিচারপতি) ভুলে গেলে হবে না যে শেখ হাসিনা তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তিনি ক্ষমতায় আসার পর তাকে নানাভাবে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু তাকে কোনোকিছুই দমিয়ে রাখতে পারে নাই। তিনি সবকিছুকে উপেক্ষা করে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আকতারে সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অপু উকিলের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। মানববন্ধনে যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় এবং ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।