ফকিরহাটে অবশেষে অজ্ঞাত যুবতীর লাশের পরিচয় মিলেছে : আটক ১

মান্না দে, ফকিরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার পিলজংগ এলাকায় উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত যুবতীর লাশের পরিচয় মিলেছে। হতভাগ্য মেয়েটি রামপাল উপজেলার গৌরাম্ভার ছায়রাবাদ গ্রামের মোমজিদ শেখ ও রিজিয়া বেগমের কন্যা শিরিনা বেগম (২৭)। গত ৩১ আগষ্ট তার পিতা-মাতা ও নিকট আত্মীয় স্বজন মৃতের ছবি, পোশাক ও দেহের বর্ননা থেকে নিশ্চিত হয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সঞ্জয় দে জানান। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে একই এলাকার রেজাউল করিমের পুত্র হুমায়ুন ফকিরকে পুলিশ আটক করেছে। মেয়েটিকে হত্যার ক্লু কিছুটা উদ্ধার হলেও মামলার তদন্তের স্বার্থে পুলিশ গোপন রেখেছে। তবে হত্যার মূল রহস্য শিঘ্রই উদঘাটন ও ঘটনার মূল হোতাদের আটকের জোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। মৃতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শিরিনা বেগম এর সাথে ২০০০ সালের দিকে একই গ্রামের কাশেম শেখের বিয়ে হয়। তাদের দুইটি কন্যা সন্তান রয়েছে। শিরিনা বেগম রূপসাস্থ একটি জুট মিলে চাকুরী করত। গত ২৪ আগষ্ট সকালে সে বাড়ী থেকে বের হয়ে আর ফিরে যায়নি। এদিকে গত ২৫ শে আগষ্ট পিলজংগ এলাকায় মহাসড়কের পাশে ওড়না দিয়ে শ^াসরুদ্ধ করে হত্যা করা অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। লাশের পরিচয় না পাওয়ার কারনে তাকে আঞ্জুমানা মফিদুলে দাফন করা হয়। এ ব্যাপারে এদিন প্রাথমিকভাবে সংশ্লিষ্ট মডেল থানায় একটি জিডি করা হয়। পরবর্তীতে এসআই সঞ্জয় দে নিজ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার নং-১১, ধারা-৩০২/২০১/৩৪ পেনাল কোড, তারিখ-২৬/০৮/১৭ইং। এ ব্যাপারে অফিসার ইনচার্জ আবু জাহিদ শেখ সত্যতা স্বীকার কে বলেন, অবিলম্বে এর আসল রহস্য উদঘাটন করতে সক্ষম হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।