প্রবল বর্ষণে বিপর্যস্ত মুম্বাই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রবল বর্ষণে ভাসছে ভারতের বাণিজ্যনগরী মুম্বাই। অবিরাম বৃষ্টিপাতে বেহাল দশা মুম্বাই এবং সংলগ্ন অঞ্চলে। বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে উল্লাস নদী। জলের তোড়ে নদীতে ভেসে গেছে বাস ও গাড়ি। কল্যাণ, বদলাপুর, নাল্লাসপোরা স্টেশনে রেললাইন ডুবে গেছে।

ফলে পশ্চিম এবং মধ্য রেলের পরিষেবা ব্যাহত।

ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, শর্টসার্কিটের আশঙ্কায় নাল্লাসপোরায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এসি ট্রেন চলাচল। প্রায় সব রাস্তায় হাঁটুপানি। সড়ক পরিবহনও থমকে গেছে। পানি কোথাও কোথাও কোমর ছুঁয়েছে। বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন বা বিএমসি পানি পাম্প করে বের করার চেষ্টা করলেও বৃষ্টি না থামায় তা সম্ভব হচ্ছে না।


এদিকে দেশটির আবহাওয়া দপ্তরও শোনাচ্ছে আরো বড় বিপর্যয়ের কথা। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে আগামী ২৪ ঘণ্টায় উত্তরপশ্চিম ভারতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরও বাড়বে। আগামী ৬ দিন মধ্য এবং দক্ষিণ ভারতেও বৃষ্টি চলবে।

পূর্ব এবং উত্তরপূর্ব ভারতে আগামী চারদিন মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হবে। অতি সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর সঙ্গেই গুজরাট, ছত্তিসগড়, উত্তর প্রদেশ, ওড়িশা এবং হরিয়ানার ওপর থাকা ঘূর্ণাঝড়ের জন্যই বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বেড়েছে। বঙ্গোপসাগরের ওপর আগামী ১৩ তারিখ থেকে নিম্নচাপ সক্রিয় হয়ে উঠতে পারে।

আকাশভাঙা বৃষ্টির সঙ্গেই আরব সাগরে জোয়ারের জলে পরিস্থিতি আরও সঙ্গিন হয়ে উঠেছে। জুহু, বান্দ্রা, মেরিন ড্রাইভ এলাকায় জনজীবন বিপর্যস্ত।


আবহাওয়া অফিস আরো জানায়, সোমবার সকাল থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮.‌৩০টা পর্যন্ত, গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১৪৪.‌৪৭ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে মুম্বইয়ে।

মুম্বইয়ের পূর্বের শহরতলিতে ১০৭.‌২১ মিলিমিটার এবং পশ্চিমের শহরতলিতে ১৩১.‌৩২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আগামী পাঁচদিন গোয়া, উত্তরাখণ্ড, ছত্তিসগড় এবং মহারাষ্ট্রের অন্যান্য জেলাগুলিতেও ভারী বর্ষণের আগাম সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দপ্তর।