প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য, মীরাক্কেলের রনির বিরুদ্ধে মামলা

ভারতের জি-বাংলা চ্যানেলের জনপ্রিয় কমেডি-শো মীরাক্কেল চ্যাম্পিয়ন আবু হেনা রনির বিরুদ্ধে নাটোরের সিংড়া থানায় মামলা করা হয়েছে। ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান সবুজ এ মামলা করেন।

মঙ্গলবার বিকালে তিনি মামলাটি করেছেন। তবে মামলা বৃহস্পতিবার রাতে রেকর্ড করা হয়।

আবু হেনা রনি সিংড়া উপজেলার চলনবিলের প্রত্যন্ত অঞ্চল বিলদহরের আব্দুল লতিফের ছেলে।

সম্প্রতি তিনি প্রধানমন্ত্রীর সাগরজলে পা ভেজানো নিয়ে বিরোধী দলীয়দের অতিরিক্ত মজার খোরাজ দিতে তার ফেসবুকে একটি ছবিসহ ‘তিনি পা ভেজালেন আর ইনি গা ভেজালেন’ শিরোনামে একটি স্ট্যাটাস দেন। পরে সামাজিক যোগাযোগের অনেক ব্যক্তি বিষয়টি বুঝতে পেরে রনিকে অশ্লীল ভাষায় কমেন্ট করেন। এতে এক পর্যায়ে রনি স্ট্যাটাসটি ডিলেট করতে বাধ্য হয়। কিন্তু স্ট্যাটাসের স্কিনশট মিডিয়াপাড়ায় ভাইরাল হওয়ায় বিপাকে পড়েন রনি।

তিনি এর আগেও বেশ কয়েকবার এরকম মন্তব্য করেছেন। একজন জনপ্রিয় কমেডিয়ান প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে ব্যঙ্গ করে এরূপ স্ট্যাটাস দেয়ায় প্রশ্নের ঝড় উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।

মামলার বাদী যুবলীগ নেতা হাফিজুর রহমান সবুজ বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। এর বাইরেও তার ব্যক্তিগত জীবন আছে। প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত জীবনের বিচিত্র বিষয়গুলো নিয়ে কেউ যদি আপত্তিকর মন্তব্য করে, তাহলে সেটা আমরা মেনে নেব না। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হোক- এটাই আমাদের দাবি।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আবু হেনা রনি জানান, ‘আমার মতো করে আমি কতো কিছুই তো ফেসবুকে লিখি। আর ওই দিন ফেসবুকে একজন বৃষ্টির মধ্যে মোটরসাইকেল নিয়ে পড়ে যায় দেখে কবিতার ছলে ‘তিনি পা ভেজালেন আর ইনি গা ভেজালেন’’’ এই ধরনের একটি স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম। পরে অনেকেই সেই বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করায় সঙ্গে সঙ্গে আমি বিষয়টির জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখিত স্ট্যাটাস দেই। স্ট্যাটাসে আরো লিখি আমাকে যারা ভুল বুঝেছেন তাদের কাছে ক্ষমা চাই ।’

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিংড়া থানার উপ-পরিদর্শক খাইরুজ্জামান জানান, তিনি শুনেছেন তিনি এই মামলার তদন্তকারী। তবে এখন পর্যন্ত কোন কাগজপত্র হাতে পান নাই।

সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল-মামুন জানান, মামলাটি বৃহস্পতিবার রাতে রেকর্ড করা হয়েছে। তদন্ত অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Inline
Inline