প্রতিবন্ধী শিশুরা সমাজের বোঝা নয়, প্রয়োজন শুধু একটু সহযোগিতা ও ভালবাসা : জেলা প্রশাসক

গাইবান্ধা থেকে আঃ খালেক মন্ডল : প্রতিবন্ধী শিশুরা সমাজের বোঝা নয়। প্রয়োজন শুধু একটু সহযোগিতা ও ভালবাসা। প্রতিবন্ধী শিশুদের মা-বাবাসহ সকলকে তাদের সাথে সহানুভূতির সহিত কাজ করতে হবে। যাতে করে তারা মনে কষ্ট না পায়। যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের জনশক্তিতে পরিনত করা সম্ভব। গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার বরিশাল ইউনিয়নের কোমরপুরহাট (রামপুর) তমিজ উদ্দিন বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ে মা সমাবেশ প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল। মঙ্গলবার দুপুরে অনুষ্ঠিত মা সমাবেশ সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম। সমাবেশে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তৌহিদুর রহমান, থানা অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল আলম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহীনুর আলম প্রমুখ। এসময় বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি বাদশা মিয়া, মোজাম্মেল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম, সদস্য সাইদুল ইসলাম, জায়দাল হক, সহকারী শিক্ষক রিক্তা বেগম, সাবরিনা আক্তার স্বর্ণা, রিপা আকতার, আঞ্জুয়ারা বেগম, সোনিয়া খাতুন, রূম্পা আক্তার ও স্বপন কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন, প্রধান শিক্ষক তানজিনা আক্তার সেতু। বিদ্যালয় চত্ত্বরে একটি পলাশ ফুলের চারা রোপন করেন।
এর আগে সাবদিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পলাশ গাছের চারা রোপন, বরিশাল ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, বাসুদেবপুর দুর্গা মন্দির, বাসুদেবপুর ভূমি অফিস ও একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্পের সদস্যদের সহিত মতবিনিময় সভা শেষে বাসুদেবপুর ইউনিয়ন ভুমি অফিস পরিদর্ষণ ও পলাশ গাছের চারা রোপন করেন। পরে উপজেলা ভুমি অফিস পরিদর্শন ও পলাশ গাছের চারা রোপন, সদরের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ পলাশবাড়ী এস.এম পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শন, ভিক্ষুকদের মাঝে মাঝে ছাগল, হাঁস ও মুরগী বিতরণ ও উপজেলার ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের সাথে মতবিনিময়, উপজেলা ইনোভেশন সভায় যোগদান এবং উপজেলা পরিষদ পরিদর্শন করেন।