পুলিশকে নারী ও শিশুবান্ধব করাই উদ্দেশ্য: ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুলিশ সপ্তাহের উদ্দেশ্য হবে ঢাকা মহানগরীতে জনবান্ধব, নারী ও শিশুবান্ধব পুলিশি ব্যবস্থা গড়ে তোলা। বুধবার ডিএমপি সদর দফতর মাঠে পুলিশ সপ্তাহ-২০১৯ এর র‍্যালি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে একথা বলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘মহানগরী থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ কঠোরভাবে নির্মূল করা হবে। যারা দুর্নীতি করবে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে। আমরা পুলিশ ও জনমানুষের মধ্যে একটি সুন্দর সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করছি। নগরীতে মা-বোনেরা রাস্তায় বের হবে কেউ বিরক্ত করবে না, ব্যবসায়ীদের কাছে কেউ চাঁদা চাইবে না, প্রবাসীরা দেশে ফ্ল্যাট ও জমি কিনবে, সেখানে কোনো দখলের ঘটনা ঘটবে না। নগরীতে অপরাধ কর্মকাণ্ড কমাতে আমরা উন্নত ও আধুনিক পুলিশি ব্যবস্থা তৈরির প্রত্যয়ে এবার কাজ করছি।’

রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকাতে স্থানীদের সঙ্গে পুলিশ সদস্যরা নিয়মিত উঠান বৈঠক করছে। এর মাধ্যমে জনগণের সঙ্গে পুলিশের একটি সুন্দর সম্পর্ক তৈরি হচ্ছে। বিভিন্ন অপরাধের বিষয়ে নাগরিকদের সচেতন করা হচ্ছে। জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে জনমত তৈরির কাজ চলছে বলেও জানান কমিশনার।

যেকোনো তথ্য দিয়ে নগরীর অপরাধ দমনে পুলিশকে সহায়তা করার আহ্বান জানান ডিএমপি কমিশনার। তিনি বলেন, ‘মহানগরে কোথাও কোনো মাদকের আখড়া থাকবে না। যদি মাদকের কোনো আখড়া গড়ে ওঠে তবে তা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হবে। মাদক ব্যবসায়ী, সেবীসহ মাদকের সঙ্গে যারাই জড়িত থাকবে তাদের কাউকে কোনো প্রকার ছাড় দেয়া হবে না। তাদের কোমড়ে দড়ি বেঁধে আইনের আওতায় আনা হবে। যদি কোনো পুলিশ সদস্যও জড়িত থাকে, তবে তাদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’