`পি৩০ প্রো বনাম আইফোন ১১ প্রো’ সেরা কোনটি?

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : দিন দিন স্মার্টফোনের বাজারের প্রতিযোগিতা তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। বাজারে নিজেদের আধিপত্য বজায় রেখে বিশ্বের নামিদামি ব্র্যান্ডগুলো সর্বাধুনিক ফিচার সম্বলিত ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন বাজারে আনছে। হুয়াওয়ের পি৩০ প্রো ও সম্প্রতি উন্মোচন হওয়া অ্যাপলের আইফোন ১১ প্রো এমনই দুটি স্মার্টফোন। চলুন দেখে নেওয়া যাক সবকিছু মিলিয়ে কোন ব্র্যান্ডের ‘প্রো’ স্মার্টফোনটি এগিয়ে আছে?

ক্যামেরা

আইফোন ১১ প্রো নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা বলছেন, স্মার্টফোনটির ক্যামেরা পেশাদার আলোকচিত্র ও ভিডিওগ্রাফারদের জন্য উপযুক্ত। সুখকর তথ্য হলো, আইফোন ১১ প্রো’তে যুক্ত করা হয়েছে তিন লেন্সের ক্যামেরা। ওয়াইড, আল্ট্রা ওয়াইড ও টেলিফটো লেন্স। এতে রাখা হয়েছে লো লাইট ক্যাপচার অপশনও। তবে আর এক ব্র্যান্ড হুয়াওয়ের প্রো স্মার্টফোন পি৩০ প্রো এর দিকে যদি তাকাই তবে এগিয়ে রাখতে হবে হুয়াওয়ের প্রো স্মার্টফোনকে। হুয়াওয়ের পি৩০ প্রো স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে লেইকা কোয়াড ক্যামেরা। বিশ্বখ্যাত ক্যামেরা ব্র্যান্ড লেইকা যুক্ত রয়েছে এ ব্র্যান্ডের সাথে। এছাড়াও হুয়াওয়ের এ ফোনটিতে জুমিং সুবিধা রাখা হয়েছে ৫০ গুণ পর্যন্ত। ক্যামেরায় রয়েছে সুপার লো-লাইট, ম্যাক্রো, এআই সিন রিকগনিশন ফিচার। আর হুয়াওয়ের টিওএফ প্রযুক্তি ব্যবহারের কারণে তুলনামূলক ভালো বোকেহ মুড পাওয়া যাবে।

ব্যাটারি ও ফাস্ট চার্জ

হুয়াওয়ে তাদের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলোতে সবসময় দীর্ঘস্থায়িত্বের ব্যাটারি ব্যবহার করে। হুয়াওয়ের পি৩০ প্রো স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে ৪০ ওয়াটের সুপার চার্জিং সুবিধাসহ ৪২০০ এমএএইচের ব্যাটারি। আর আইফোন ১১ প্রো’তে রাখা হয়েছে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সহ ৩১৯০ এমএইচের ব্যাটারি। ফলে ব্যাটারি বিবেচনায় এগিয়ে থাকবে হুয়াওয়ের পি৩০ প্রো।

র‌্যাম ও রম

আইফোনের নতুন স্মার্টফোন ১১ প্রো’তে ৪ জিবি র‌্যামের সাথে রাখা হয়েছে ৬৪ জিবি, ২৫৬ জিবি ও ৫১২ জিবি রম সুবিধা। অপরদিকে হুয়াওয়ের পি৩০ প্রো’তে ৮ জিবি র‌্যামের সাথে রাখা হয়েছে ২৫৬ জিবি ও ৫১২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ সুবিধা। ফলে ফোনে বেশি মেমোরি ও ভালো পারফরমেন্সের জন্য ফোন দু’টির র‌্যাম ও রম বিবেচনা নিতে হবে।

ডিসপ্লে ও স্ক্রিন

আইফোনের ১১ প্রো স্মার্টফোনটির ডিসপ্লে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি। ওএলইডি ডিসপ্লের এ ফোনটির স্ক্রিন টু বডি রেসিও ৮২.৯ শতাংশ। এতে রাখা হয়েছে সুপার রেটিনা এক্সডিআর প্রযুক্তি। হুয়াওয়ের পি৩০ প্রো স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে ৬ দশমিক ৪৭ ইঞ্চির ওএলইডি ডিসপ্লে। এর স্ক্রিন টু বডি রেসিও ৮৮.৬ শতাংশ।

দাম

বিশ্ববাজারে হুয়াওয়ে পি৩০ প্রো স্মার্টফোনটির (৮+২৫৬ জিবি) দাম ৮১৪.০৪ ইউএসডি ডলার। আর আইফোন ১১ প্রো স্মার্টফোনটির (৪+২৫৬ জিবি) দাম ১৩৪০.৯৩ ইউএসডি ডলার।

আইফোন বরাবরই গ্রাহকদের কাছে খুবই আকর্ষণীয়। তার ধারাবাহিকতায় আইফোন ১১ প্রো ও আকর্ষণীয় স্মার্টফোন। তবে হুয়াওয়ের ফ্ল্যাগশিপ পি৩০ প্রো এর সাথে কনফিগারেশন তুলনায় গেলে এ ফোনটিকে এগিয়ে রাখতেই হবে।