পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার তুষখালী কলেজে সন্ত্রাসী হামলা

সুব্রত হালদার পিরোজপুর থেকে : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার তুষখালী কলেজে একদল সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়েছে তাই তার প্রতিবাদে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক- শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার লোকজন সড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।
কলেজ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার আনুমানিক রাত ১০ টার দিকে একদল সন্ত্রাসীরা কলেজের ভিতরে ঢুকে হামলা চালায়। এই সময়ে কলেজে থাকা নৈশ প্রহরী খায়রুল ফরাজীকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। আহত খায়রুল ফরাজীকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাই সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন করেছে শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন। এ সময় সড়কের সকল যান চলাচল বন্ধ থাকে। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা হামলায় জড়িত উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজের পালিত সন্ত্রাসী বাহিনীকে গ্রেপ্তারের দাবি জানায়। সূত্র জানায়, শুক্রবার বিকেলে পিরোজপুর জেলা স্টেডিয়ামে পুলিশ সুপার গোল্ড ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় অংশ নেয় মঠবাড়িয়া উপজেলার দল। খেলায় ভান্ডারিয়া উপজেলার কয়েক শত দর্শক উপস্থিত হন তারা পিরোজপুর সদর উপজেলার দলের সমর্থন করে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মিরাজুল ইসলামের প্রতিষ্ঠিত তুষখালী কলেজে হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তুষখালী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম দাবি করেন মঠবাড়িয়া উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যানের লোকজন কলেজে হামলা চালিয়েছে।