পাহাড়ে লেবুর উৎপাদন বেড়েছে

হবিগঞ্জ সংবাদদাতা : পাহাড়ি লাল মাটি লেবু চাষের উপযোগী। এ কারণে দিন দিন লেবু চাষ বাড়ছে হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার মুছাই পাহাড়ি এলাকায়।

এখানে একের পর এক দাঁড়িয়ে আছে পাহাড়ি টিলা, মাঝে মাঝে সমতল। টিলার উপর থেকে নিচ পর্যন্তই লেবু গাছে ছাওয়া। আর গাছে গাছে ঝুলছে লেবু। সে এক নয়নাভিরাম দৃশ্য।

মুছাই এলাকার মতো জেলার নবীগঞ্জ, মাধবপুর, চুনারুঘাট ও বাহুবল উপজেলার পাহাড়ি এলাকার বিভিন্ন স্থানেই শোভা পাচ্ছে লেবু চাষ । লাভজনক হওয়ায় দিন দিনই বাড়ছে চাষের পরিধি।

স্থানীয়রা জানান, সারা বছরই এ লেবু চাষ হচ্ছে। তবে বর্ষায় লেবুর ফলন তুলনামূলক বেশি হয়। শুষ্ক মৌসুমে সেচের মাধ্যমে পানি সরবরাহ করলেও লেবুর ভাল ফলন পাওয়া যায়। তাই পাহাড়ি এলাকার লোকজন পতিত জমি না ফেলে রেখে এখন লেবু চাষে মনোযোগ দিয়েছেন।

কলম চারা করে, রোপনের বছর যেতেই ধরা পড়ে লেবু। স্বাদ ও ঘ্রাণে অতুলনীয় এ লেবুতে রয়েছে ঠাসা রস। লেবু গাছের ফাঁকে ফাঁকে কলা, পেঁপে, নাগা মরিচ, কাঁঠাল গাছ লাগিয়ে উৎপাদন পাওয়া যাচ্ছে।

হবিগঞ্জ কৃষি বিভাগের হিসেবে, ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে ১১৬৮ হেক্টর জমিতে ৬২৪৬ মেট্রিক টন লেবু উৎপাদন হয়েছে। নিয়মিত বৃষ্টির কারণে এবার লেবুর ভাল ফলন হয়েছে। গাছে গাছে লেবু আর লেবু। হবিগঞ্জের পাহাড়ে কাঁঠাল, চা-রাবারের সাথে লেবুও অর্থকড়ি ফসল হয়ে উঠেছে।

লেবু চাষকে কেন্দ্র করে জেলার মুছাই ও মিরপুরে প্রায় ১০টি আড়ৎ গড়ে উঠেছে। আরও নতুন আড়ৎ গড়ে উঠছে। চাষিরা বাগান থেকে লেবু সংগ্রহ করে এসব আড়তে নিয়ে যান। আড়ৎ থেকে লেবু পাইকাররা ক্রয় করে দেশের নানা প্রান্তে প্রেরণ করছেন। আবার প্রক্রিয়াজাত করে দেশের বাইরেও (মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপ) পাঠানো হচ্ছে।

বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকির বাসিন্দা বাগান মালিক রায়হান মিয়া জানান, লেবু চাষে কোন ঝুঁকি নেই। পাহাড়ি মাটিতে রোপনের বছর যেতেই ফলন পাওয়া যাচ্ছে। তবে গোড়া পরিস্কার করে গরুর গোবর ও কিছু পরিমাণে সার প্রয়োগ করলে ভাল ফলন পাওয়া যায়।

তিনি জানান, যাদের লেবু বাগান রয়েছে, তারা গরু পালন করছেন। কারণ লেবু বাগানে প্রচুর ঘাস পাওয়া যায়। এ ঘাসে গরু পালন করা সহজ। আর গরুর গোবর লেবু গাছে প্রয়োগ করা যায়। যা লেবুর ফলন বাড়াতে সাহায্য করে।

এ ব্যাপারে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ ফজলুর রহমান বলেন, হবিগঞ্জের পাহাড়ি এলাকায় সম্ভাবনাময় ফসল লেবু । আমরা এখানকার চাষিদের প্রশিক্ষণসহ নানাভাবে পরামর্শ প্রদান করছি। তাতে চাষিরাও লেবুর ভাল ফলন পাচ্ছেন।