পাথরের রফতানি মুল্য বাড়িয়েছে ভারত

ভারত থেকে বাংলাদেশে বড় আকারের বোল্ডার পাথরের রফতানি মুল্য বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত সরকার। এর ফলে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বোল্ডার পাথরের আমদানি বন্ধ রয়েছে।

এক ফ্যাক্স বার্তার মাধ্যমে বুধবার বিকেলে ভারতের মালদা কাসটমস কমিশনারের কার্যালয় হতে হিলি কাষ্টমসে ডলার বৃদ্ধির বিষয়টির নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনায় প্রতি মেট্রিকটন বোল্ডার পাথরের রফতানি মুল্য ১৪ মার্কিন ডলার থেকে বাড়িয়ে ১৮.৫ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করা হয় বলে ভারতীয় সিএন্ডএফ এজেন্ট ব্যাবসায়ীরা জানিয়েছেন। ১৪ মার্কিন ডলার মুল্যে পাথর রফতানিতে কাষ্টমস অনুমতি না দেওয়ার ফলে গতকাল বিকেল থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে দুই দেশের মাঝে বড় আকারের বোল্ডার পাথরের আমদানি বন্ধ রয়েছে। তবে বন্দর দিয়ে অন্যান্য পন্যের আমদানি স্বাভাবিক রয়েছে।

পাথরের রফতানি মুল্য বৃদ্ধির বিষয়টি নিয়ে গতকাল বুধবার বিকেলে বন্দরের পন্যপ্রবেশ গেট হিলি সীমান্তের শুন্যরেখায় ভারত ও বাংলাদেশের ব্যাবসায়ীরা এক বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। বৈঠকে এ বিষয়ে কোনো সমাধান হয়নি।

এদিকে পাথরের রফতানি মুল্য বৃদ্ধির ফলে বাংলাদেশের পাথর আমদানিকারকদের বেশি মুল্যে পাথর আমদানিতে অনাগ্রহ থাকায় বিষয়টি নিরসনের লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার ভারতীয় রফতানিকারকরা ভারতের কলকাতায় কাষ্টমসের সঙ্গে বৈঠক করেন। অপরদিকে বাংলাদেশি ব্যাবসায়ীরা একই বিষয় নিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআরের) সঙ্গে বৈঠকে করেন বলে ব্যাবসায়ীরা জানান।

হিলি স্থলবন্দরের সিএন্ডএফ এজেন্ট হায়াৎ মোহাম্মদ শেরেগুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গতকাল বিকেল থেকে ভারতীয় রফতানিকারকরা বাংলাদেশে বড় আকারের পাথর রফতানি বন্ধ রেখেছেন। প্রতি মেট্রিকটন পাথরের মুল্য ১৪ মার্কিন ডলার করে করা আগের এলসিগুলো নতুন করে তাতে ডলার বাড়িয়ে ১৮.৫ মার্কিন ডলার মুল্যে এমান্ডমেন্ট না করা হলে পুরানো দামে আর তারা পাথর রফতানি করবেন না।