পলাশবাড়ির অফিস আদালতে তৃতীয় লিঙ্গদের দৌড়ত্ব বৃদ্ধি

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা সংবাদদাতা : সরকারী সহায়তা ও পু্নর্বাসন না করায় দিন দিন বেপরোয়া হচ্ছে পলাশবাড়ি উপজেলার বসবাসকারী তৃতীয় লিঙ্গের ব্যাক্তিরা।
সোমবার সকাল ১০টায় পলাশবাড়ি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসে দেখা হয় তৃতীয় লিঙ্গের মায়া রানীর সাথে। এসেছে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের প্রকৌশলী রাসেল আহম্মেদ এর কাছে বলছে স্যার আমরা কয়েকজন আছি আমাদের কয়েকটি চাউলের স্লিপ দেন। উত্তরে রাসেল সাহেব হাঁ অবশ্যই দেয়া হবে তোমরা তালিকা প্রস্তুত করে অফিসে জমা দিও আমরা চেয়ারম্যানদের সুপারিশ করবো।
এমন সময় প্রকৌশলী রাসেল সাহেবের সামনে মায়া রানী সাংবাদিকদের বলেন ভাই আমাদের জন্য কিছু একটা করেন। আমাদের কোন মাথা গোজার ঠাঁই নাই! ইউএনও স্যার দুই বান্ডিল টিন দিয়েছে যায়গা নাই বিধায় ঘর তুলতে পারছি না। আপনারা আমাদের জন্য সরকারের কাছে কিছু তুলে ধরেন। সে আরো বলে আমরা তৃতীয় লিঙ্গ বলে সমাজে আমাদের সাথে কেউ ভাল ব্যবহার করে না। সবাই আমাদের চাঁদাবাজ ধান্দাবাজ বলে আখ্যায়িত করে।
অনেকে আবার ঘৃণায় মুখ ফিরিয়ে নেয়। আমরাও তো মানুষ! আমাদের সুন্দর একটি মন আছে। আছে স্বাধীন ভাবে কাজ করে বেঁচে থাকার নাগরিক অধিকার। এই লিঙ্গে জন্ম না হয়ে মৃত্যু হওয়া অনেক ভাল ছিল!