পলাশবাড়িতে ভুল চিকিৎসায় সদ্যজাত শিশুর মৃত্যু

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা সংবাদদাতা : পলাশবাড়ি সদরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে কর্মরত নার্স, ডাক্তার, কর্মচারি, উপজেলার বিভিন্ন ওয়ার্ডে কর্মরত সেবিকারা মিলে কয়েকটি চক্রে বিভক্ত। গর্ভবতী নারীরা হাসপাতালে ভর্তি হলেও অদৃশ্য কারণে আবার হাসপাতাল হতে এখানে কর্মরত নার্সের বাসা বাড়ী নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে করানো হয় গর্ভপাত। এসব বাসায় কখনো নবজাতক শিশু বা গর্ভবতী মা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। স্থানীয় কিছু মাতাব্বরের মধ্যস্থতায় এসব ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার কে যত সামান্য অর্থ দিয়ে আপোষ মিমাংসা করা হয়।
২০ মে রবিবার দুপুরে পলাশবাড়ির বরিশাল ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের সাইফুলের স্ত্রী গর্ভবতী শাহনাজ বেগম কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে সারাদিন থাকার পর সন্ধ্যার সময় রোগীর ক্ষতি ও টাকা পয়সা বেশী খরচের ভয়ভীতি দেখিয়ে অভিযুক্ত নার্স নাজমা বেগম তার বাসায় নিয়ে ডেলিভারি করে। এ ডেলিভারির সময় সন্তান প্রসব হলে অক্সিজেন সংকটে নবজাতক শিশুটির মৃত্যু হয়।
এখবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজনেরর মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে তারা এ ঘটনার পর হাসপাতালের সামনে নার্সের এ ভাড়া বাসায় প্রতিবাদ জানাতে থাকে পরে স্থানীয় কয়েকজন মাতাব্বরের মধ্যস্থতায় বিষয়টি ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারটির সাথে আপোষ করা হয়।
ভুক্তভোগী গর্ভবতী নারী কে সোমবার সকালে আবারো অত্র স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয় বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন আছে।

Inline
Inline