নৌকায় ভোট দেন, উন্নয়ন দেব: প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট চাই। আপনারা নৌকায় ভোট দেবেন আমরা আপনাদের উন্নয়ন দেব। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এগিয়ে যাবে। এ দেশের যত বড় বড় অর্জন তা নৌকায় ভোট দিয়েই এসেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ধানমন্ডির সুধা সদন থেকে রাজশাহী, জয়পুরহাট, গাইবান্ধা ও নড়াইলে নিজ দল ও জোটের প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রাথমিক বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দেশের জনগণের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সুষম উন্নয়নে বিশ্বাস করে। আগামী নির্বাচনে জয়ী হলে আমরা কী কী কাজ করব তা আমাদের ইশতেহারে বলে দিয়েছি। মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে আমরা কী কী কাজ করব সেটাও বলে দেয়া হয়েছে। সার্বিকভাবে দেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়াকে অব্যাহত রাখব, সেই লক্ষ্য নিয়েই দেশের জনগণের কাছে উপস্থিত হয়েছি।’

আওয়ামী সরকারের সময়ে বিভিন্ন উন্নয়নের উদাহরণ দিতে গিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে এর আগে আমরা নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষণা দিয়েছিলাম-বাংলাদেশ হবে ডিজিটাল বাংলাদেশ। আজ ঢাকায় বসে আমরা রাজশাহী, নড়াইল, গাইবান্ধাসহ বিভিন্ন জায়গায় ভিডিও কনফারেন্স করছি-এটাই ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রমাণ। বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট আজ মহাকাশে অবস্থান করছে। আমরা সমুদ্রসীমা অর্জন করেছি। স্থলসীমানা চুক্তি আমরা বাস্তবায়ন করেছি। গত দশ বছরে দেশের জনগণের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছি। যা দৃশ্যমান এবং প্রতিটি জনগণ অনুভব করতে পারছে যে বাংলাদেশে উন্নয়ন হয়েছে।’

আগামীতে যদি সরকারে আসতে পারি তাহলে আমাদের এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে জানিয়ে আওয়ামী সভাপতি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা যেন দারিদ্র্যমুক্ত এবং ক্ষুধামুক্ত হয় আমরা সে বিষয়টি লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। ২০২০ সালে আমরা জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী পালন করব এবং ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করব। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী অর্থাৎ ২০২০ সালের মার্চ থেকে ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত আমরা মুজিব বর্ষ হিসেবে ঘোষণা করেছি। আমি জনগণের কাছে এটাই চাই যে, নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমরা যেন বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করতে পারি সে সুযোগটা আমরা চাই। তার জন্যই আমরা নৌকা মার্কায় ভোট চাই।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর সারাদেশে যে কমিউনিটি সেন্টার স্থাপন করেছিলাম, সেই কমিউনিটি সেন্টারে হাজার হাজার মা-বোন-ভাইয়েরা চিকিৎসা নিয়েছেন। বিনা পয়সায় ওষুধ পেয়েছেন। বিএনপি ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার পর এই কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ করে দেয়।’

ক্ষমতায় বারবার পরিবর্তন এলে উন্নয়নমূলক কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা প্রত্যেকটা জেলাকে নিরক্ষরতা মুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছিলাম এবং অনেকগুলো জেলা নিরক্ষরতামুক্ত করেছিলাম। কিন্তু খালেদা জিয়া ক্ষমতায় আসার পরে সেগুলো বন্ধ করে দেয়। এভাবে আমরা অনেক দৃষ্টান্ত দেখাতে পারব যে, জনকল্যাণে যে কাজগুলো আমরা শুরু করে দিয়েছিলাম ক্ষমতা পরিবর্তন হওয়ার পর সেগুলো বন্ধ হয়ে যায়।’