নারায়ণগঞ্জে গৃহবধূ হত্যায় স্বামীসহ আসামি ৩

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় গার্মেন্টকর্মী গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার ঘটনায় স্বামী ও তার ভগ্নিপতিস তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নিহত সাজেদা আক্তার মীমের বাবা হারুন উর রশিদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

নিহত সাজেদা আক্তার মীম (২০) জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার সিরাজাবাদ গ্রামের হারুন উর রশিদের মেয়ে। স্বামী শামিউল ইসলাম ইসলামপুর থানার তাসিহারা গ্রামের সানু মিয়ার ছেলে। শামিউলের ভগ্নিপতি তাদের পাশের এলাকা সিরাজাবাদের মনু মিয়ার ছেলে।

মামলার বরাত দিয়ে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন জানান, এক বছর আগে শামিউল ইসলাম ও সাজেদা আক্তার মীমের বিয়ে হয়েছিল। বিয়ের পর থেকে দুই লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে প্রায় সময় মীমকে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন করত শামিউল। দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না পেয়ে বুধবার সন্ধ্যায় শামিউল ইসলাম তার ভগ্নিপতি তামিম (৩৫) সহ অজ্ঞাত তিন দুর্বৃত্তকে নিয়ে সাজেদা আক্তার মীমকে (২০) শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে ঘরের বাহির থেকে দরজা বন্ধ করে পালিয়ে যায়।

এরপর অজ্ঞাত স্থান থেকে একইদিন সন্ধ্যায় শামিউলের ভগ্নিপতি তামীম ফোন করে মীমের অসুস্থতার সংবাদ দেয় তার বড় বোন হামিদাকে। পরে হামিদা কায়েমপুর এলাকার আমির হোসেনের বাড়িতে ভাড়া নেয়া বাসায় এসে মীমের নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরিবার থেকে এমনটাই অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত চলছে।