নন-এমপিও শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচিতে পুলিশের বাঁধা

অদ্য সকাল ১০ ঘটিকায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে সকল স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান শুরু হয়। বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শিক্ষক কর্মচারীবৃন্দ অবস্থানে আসতে শুরু করলে সরকারের পুলিশ বাহিনী শিক্ষক-কর্মচারীদের বিভিন্নভাবে ভীতি প্রদর্শন করেন এবং অবস্থান না নেওয়ার জন্য বিভিন্ন কৌশল প্রয়োগ করেন। এক পর্যায়ে সোয়া ১১টায় পুলিশ কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ গোলাম মাহমুদুন্নবী (ডলার) এবং সাধারণ সম্পাদক ড: বিনয় ভূষণ রায়কে অবস্থান কর্মসূচি থেকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। তবুও শিক্ষক-কর্মচারীরা অবস্থান নেওয়া চেষ্টা করেন এবং বিক্ষিপ্ত ভাবে জাতীয় প্রেসক্লাব এলাকায় অবস্থান করেন। দুপুর ২টার দিকে পুলিশ কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ গোলাম মাহমুদুন্নবী (ডলার) এবং সাধারণ সম্পাদক ড: বিনয় ভূষণ রায়কে ছেড়ে দেন এবং তাঁরা পুনরায় এসে অবস্থান কর্মসূচিতে যোগদান করেন।
সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন বিকাল ৩টায় আজকের মত অবস্থান কর্মসূচির সমাপ্তি ঘোষণা করেন। আগামীকাল সকাল ৯টা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পুনরায় পূর্বঘোষিত লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি চলমান থাকবে বলে তিনি ঘোষণা দেন। তিনি সারাদেশের সকল নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের ঢাকায় এসে আন্দোলনে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি’১৮ শিক্ষকদের আন্দোলন চলাকালে প্রধানমন্ত্রী সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু অর্থমন্ত্রী বর্তমান বাজেটে এখাতে কোন অর্থ বরাদ্দ না রাখায় শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হন।(বিজ্ঞপ্তি)

Inline
Inline