নতুন করে নির্বাচন দেয়ার এখতিয়ার প্রভোস্টের নেই: হল প্রভোস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে রোকেয়া হল সংসদে পুনর্নির্বাচন দেয়ার এখতিয়ার হল প্রাধ্যক্ষের (প্রভোস্ট) নেই বলে মন্তব্য করেছেন ওই হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

হল থেকে পাওয়া ব্যালট পেপারে কোনো সিল ছিল না দাবি করে প্রাধ্যক্ষ ড. জিনাত হুদা বলেন, ১১ তারিখ নির্বাচনের আগের দিন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৬টি ব্যালট বাক্স এবং ৩টি ট্রাংকসহ কেন্দ্রীয় সংসদের জন্য ৪৬০৮টি এবং হল সংসদের জন্য ৪৬৩৮টি ব্যালট পেপার সরবরাহ করা হয়। ভোটের দিন ৬টি ব্যালট বাক্স ভোটকেন্দ্রে রাখা হয়। বাকি ৩টি ট্রাংক ২৬০৮টি ব্যালট পেপারসহ পাশের রুমে রাখা ছিল। এনিয়ে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। ব্যালট পেপারগুলোতে কোনো সিল ছিল না। ওইগুলো সব প্রার্থীকে দেখানোও হয়।

পুনর্নির্বাচনসহ চার দফা দাবিতে রোকেয়া হলের সামনে শিক্ষার্থীদের অনশনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি হলের হাউজ টিউটরদের মাধ্যমে ওদের খোঁজ-খবর নিয়েছি। হল কর্তৃপক্ষ বা আমার দ্বারা কারও বিরুদ্ধে কোনো মামলা করা হয়নি।’

এর আগে ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচনের দিন দুপুরে রোকেয়া হল সংসদের কক্ষে সিলগালা করা ব্যালট পেপারের প্যাকেটসহ তিনটি ট্রাংক পাওয়া যায়। ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ওই কক্ষের দরজা ভেঙে ভেতর থেকে ট্রাংকগুলো বাইরে নিয়ে আসে। ট্রাংকের ভেতরে থাকা সিলগালা করা ব্যালট পেপারের প্যাকেট থেকে ব্যালট পেপার বের করে ছড়িয়ে ছিটিয়ে দেন তারা।