ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে পবিত্র শবে কদর পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে পালিত হয়েছে পবিত্র লাইলাতুল কদর বা শবে কদর। হাজার রাতের চেয়ে পূণ্যময় এই রজনীতে ইবাদত করতে ঈশা ও তারারির নামাযে মসজিদগুলোতে নামে মুসল্লিদের ঢল। সারা রাত নফল নামাজ, জিকির-আসকার, কোরআন তেলাওয়াত করে রাত অতিবাহিত করেন মুসল্লিরা।

অনেকে রাতে কবরস্থানে গিয়ে প্রয়াত মা-বাবা, আত্মীয়স্বজনের কবর জিয়ারত করে তাদের আত্মার শান্তির জন্য দোয়া করেন।

শবে কদর মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত মহিমান্বিত একটি রাত। এই রাতের ইবাদত হাজার মাসের ইবাদতের চেয়েও উত্তম। এই রাতেই মুসলমানদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল-কোরআন নাজিল হয় এবং এই রাতকে কেন্দ্র করে কোরআন শরিফে ‘আল-কদর’ নামে একটি সুরা অবতীর্ণ করা হয়। তাই শবে কদরের রাতটি মুসলমানরা মহান আল্লাহ পাকের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা ও পুণ্য লাভের আশায় নফল নামাজ আদায়, কোরআন তিলাওয়াত ও জিকির-আসকার করে অতিবাহিত করেন।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে গতকাল রাতে ওয়াজ মাহফিল, দোয়া ও বিশেষ মোনাজাত হয়। এছাড়া দেশের অন্যান্য মসজিদেও ইবাদত বন্দেগীতে রাত পার করেন মুসল্লিরা।
যেসব মসজিদে খতমে তারাবি হচ্ছে সেখানে আজ খতম হয়। খতমে কোরআনকে কেন্দ্র করে মসজিদে মসজিদে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। বিভিন্ন মসজিদে ওয়াজ মাহফিলও অনুষ্ঠিত হয়।

ফজরের নামাজের পর বিশেষ মোনাজাতে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনা করে আল্লাহর দরবারে দোয়া করা হয়।

Inline
Inline