দেশে তরুণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা বাড়ছে:ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য

সারা বিশ্বে যতো আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে, তার মধ্যে তরুণ শিক্ষার্থীদের সংখ্যাই বেশি। আমাদের দেশে শিক্ষার্থীদের মাঝে এই প্রবণতা আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে। বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের এক আলোচনা সভায় ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হুসেইন এসব কথা বলেছেন।
১০ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার ছিল বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। এ উপলক্ষে সকাল নয়টায় রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ওই আলোচনা সভার বিষয় ছিল ‘মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও আত্মহত্যা প্রতিরোধ’। মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের নারী নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রামের আওতাধীন ন্যাশনাল ট্রমা কাউন্সিলিং সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ এবং বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটি যৌথভাবে এ আলোচনা সভা আয়োজন করে।
সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হুসেইন বলেন, গত এক বছরে পাঁচটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ১৯টি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। কেবল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ১১টি আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, আত্মহত্যার প্রবণতা ঠেকাতে প্রতিটি সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের ব্যবস্থা থাকা দরকার। এর মাধ্যমে আত্মহত্যা প্রবণতার কারণগুলো খুঁজে বের করে সময়মতো ব্যবস্থা নিয়ে বহু প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হবে। অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হুসেইন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে এসে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা এভাবে বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি মনে নানা প্রশ্ন জাগায়। গবেষণার মাধ্যমে এর কারণগুলো খুঁজে বের করা এখন সময়ের দাবি।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। স্বাগত বক্তব্য দেন মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের নারী নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক ড. আবুল হোসেন। আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান মোছাম্মৎ নাজমা খাতুন। সভাপতিত্ব করেন একই মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার। খবর বিজ্ঞপ্তির