দামুড়হুদায় করিমন মটরসাইকেল মুখোমুখী সংঘর্ষ পুলিশের এসআইসহ আহত-৫

হাবিবুর রহমান, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ; চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় স্যালোইঞ্জিন চালিত করিমন মটরসাইকেল মুখোমুখী সংঘর্ষে দামুড়হুদা মডেল থানার এসআইসহ ৪ বাইসাইকেল ব্যবসায়ী আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ফাঁড়ির এসআই ও কুষ্টিয়া কুমারখালির দিয়ানত আলীর ছেলে আবুল কাশেম, দামুড়হুদার রঘুনাথপুর গ্রামের ফয়েজের ছেলে রেজাউল(৪০) মৃত: মোবারক মোল্লার ছেলে তাহের(৫০) তাহেরের ছেলে আলামিন(২৮) ও ওয়াহেদ শাহার ছেলে হামিদ (৪০)। আহতদের মধ্যে এসআই আবুল কাশেম গুরুত্বর আহত হওয়ায় তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ও বাকি ৪ জনকে দামুড়হুদা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা রাতে দামুড়হুদা নতুন হাউলির কবরস্থানের কাছে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে দামুড়হুদার রঘুনাথপুর গ্রামের বাইসাইকেল ব্যবসায়ীরা চুয়াডাঙ্গা বাইসাইকেল হাটে সাইকেল বিক্রি করতে যায়। সব সাইকেল বিক্রি না হওয়ায় তারা করিমনযোগে রঘুনাথপুর বাড়ি ফেরার পথে নতুন হাউলি কবরস্থানের কাছে পৌছায়। এসময় কাশেম কার্পাসডাঙ্গা ফাঁড়ি থেকে পালসার মোটরসাইকেল নিয়ে থানায় আসার পথে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে এসআই আবুল কাশেম পিসরোডে ছিটকে পড়ে মাথায় ও পায়ে মারাত্বক আঘাত পায়। এসময় তার মোটরসাইকেল দুমড়েমুচড়ে যায়।
স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে দামুড়হুদা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়। কাশেমের অবস্থা মারাত্বক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে।
থানা পুলিশ খবর পেয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকরাম হোসেন ও কার্পাসডাঙ্গার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আসাদ দ্রুত হাসপাতালে ছুটে গিয়ে তার খোঁজ খবর নেন। কাশেমকে পুলিশের গাড়িতে করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠায়। বাকি ৪জন সাইকেল ব্যবসায়ী দামুড়হুদা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আহতরা সকলেই আশংকা মুক্ত।

Inline
Inline