দাওরায়ে হাদিসের ফল প্রকাশ, পাসের হার ৭৩.৩৪

নিজস্ব প্রতিবেদক : সম্মিলিত কওমি শিক্ষা বোর্ড আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের অধীনে অনুষ্ঠিত দাওরায়ে হাদিসের দ্বিতীয় কেন্দ্রীয় পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে পাসের হার ৭৩.৩৪।

বৃস্পতিবার সকালে প্রতিষ্ঠানটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় মতিঝিলে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘোষণা করা হয়। এতে বোর্ডের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সকাল সাড়ে ১০টায় হাইআতুল উলয়ার পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা ইসমাঈল বোর্ডের কো-চেয়ারম্যান ও বেফাকের সিনিয়র সহসভাপতি আল্লামা আশরাফ আলীর হাতে ফলাফলের কাগজ তুলে দেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের সহসভাপতি মাওলানা সাজিদুর রহমান, মুফতি ফয়জুল্লাহ, মাওলানা বাহাউদ্দীন জাকারিয়া, মহাসচিব মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, সহকারী মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়্যা বাংলাদেশের মহাসচিব মুফতি মুহাম্মদ আলী, হাইআতুল উলয়ার দপ্তর সম্পাদক মাওলানা ওসিউর রহমান প্রমুখ।

এ বছর দাওরায়ে হাদিসের পরীক্ষা সম্মিলিত ৬ বোর্ড থেকে অংশ নিয়েছিলেন ২০ হাজার ৭৪৯ জন শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে ছাত্র ১৪ হাজার ৭৪৭ জন এবং ছাত্রী ছয় হাজার দুই জন। ১৭২টি ছাত্র কেন্দ্রে ও ১৫০টি ছাত্রী কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

দেশের ছয়টি কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডর অধিভুক্ত দাওরায়ে হাদিস মাদরাসার ছাত্র-ছাত্রীরা এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

বোর্ডগুলো হলো, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ, বেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া গওহরডাঙ্গা বাংলাদেশ, আযাদ দ্বীনী এদারায়ে তা’লীম বাংলাদেশ, তানযীমুল মাদারিসিদ দ্বীনিয়া বাংলাদেশ, আঞ্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশ এবং বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়্যা বাংলাদেশ সমন্বয়ে গঠিত এ বোর্ড।

প্রকাশিত ফলাফলে পুরুষদের মধ্যে মুমতাজ মার্ক পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৭১৫ জন শিক্ষার্থী। জায়্যিদ জিদ্দান ৩৫০৭ জন, জায়্যিদ ৫৫৮৬, মকবুল ৪৭২৬। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়নি ৪৮৮৬ জন শিক্ষার্থী। এছাড়া অনুপস্থিত ছিল ৯৩১ জন, স্থগিত হয়েছে ৩৮৩ জনের পরীক্ষা।

পুরুষদের মধ্যে মেধা তালিকায় প্রথম হয়েছেন বগুড়ার জামিল মাদরাসার শিক্ষার্থী মুহাম্মদ শামসুল হক। যৌথভাবে দ্বিতীয় হয়েছেন দুইজন। তারা হলেন, রাজধানীর জামিয়া ইমদাদিয়া ফরিদাবাদ মাদরাসার খলিল আহমদ নাদিম ও জামিয়া ইসলামিয়া পটিয়া চট্টগ্রামের মুহাম্মদ খুবাইব রাজি।

যৌথভাবে তৃতীয় হয়েছেন জামিয়া ইসলামিয়া পটিয়ার মুহাম্মদ আয়াতুল্লাহ এবং জামিয়াতুল উলূমুল ইসলাম মোহাম্মদপুর ঢাকার জিহাদুল ইসলাম।

নারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন মাহমুদিয়া মহিলা মাদরাসা ডেমরা ঢাকার মুনজিয়া ইসলাম। দ্বিতীয় হয়েছেন আয়েশা সিদ্দিকা দত্তপাড়া নরসিংদীর শামিমা আক্তার।

যৌথভাবে তৃতীয় হয়েছেন তিন ছাত্রী। তারা হলেন, আল হুদা মহিলা মাদরাসা চট্টগ্রামের রাহমা, আয়েশা সিদ্দিকা মহিলা মাদরাসা, ঢালকা নগর ঢাকার হাফসা সুলতানা এবং একই মাদরাসার শিক্ষার্থী ফাহিমা মোসাররাত।

ফল জানা যাবে যেভাবে

হাইআতুল উলয়ার নিজস্ব ওয়েব সাইট https://alhaiatululya.com এ পাওয়া যাবে ফলাফল।

এছাড়া মোবাইল ফোনের মেসেজের মাধ্যমেও ফলাফল পাওয়া যাবে। এজন্য যেকোনো মোবাইল নম্বর থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে HTR (স্পেস) রোল নম্বর লিখে ৯৯৩৩ নম্বরে Send করতে হবে।

Inline
Inline