দলিত নারীদের প্রতি সকল বৈষম্য বন্ধের দাবি

নিজস্ব সংবাদদাতা : সমাজ ও পরিবারের সর্বত্র দলিত নারীরা জাতপাত ভিত্তিক বিভাজন, বঞ্চনা ও অবহেলার শিকার হচ্ছে অভিযোগ করে তাদের প্রতি সকল বৈষম্য বন্ধের দাবি জানিয়েছে ‘দলিত নারী ফোরাম’ নামে একটি সংগঠন।

বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের নারীরা দীর্ঘ সংগ্রাম করলেও এখন পর্যন্ত নারীর যথাযথ মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়নি। সমাজে দলিতদের অবস্থা আরও নাজুক। নিরাপত্তাহীনতা, অনিশ্চয়তা, বিভিন্ন ধরনের বঞ্চনা ,শারীরিক নির্যাতন, অপহরণ ইত্যাদি একজন দলিত নারী এবং কিশোরীর জীবনের নির্মম বাস্তবতা।

বক্তারা আরও বলেন, দলিত নারীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। তাদের একটি বিরাট অংশ সারাদেশে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজ করে। তারা সমাজের বর্জ্য পরিষ্কার করে সমাজকে পরিচ্ছন্ন রাখে। কিন্তু সমাজের দলিতরাই সবচেয়ে বেশি বঞ্চনার শিকার হয়। অথচ বাংলাদেশের সংবিধানে সকল নাগরিকের জন্য সমান মর্যাদা ,অধিকার ও সম্ভাবনা নিশ্চয়তা দেয়া আছে।

এসময় আয়োজক সংগঠনের পক্ষ থেকে বেশ কিছু দাবি জানানো হয়। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- স্থানীয় থেকে জাতীয় পর্যায় পর্যন্ত সকল স্তরে দলিত নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে, দলিত নারীরা নিজেদের দক্ষতা ও সৃজনশীলতার সর্বোচ্চ বিকাশ ঘটাতে পারে সেজন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে হবে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বাসস্থানের জন্য জাতীয় বাজেটে দলিত নারীদের জন্য সুনির্দিষ্ট বরাদ্দ থাকতে হবে।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি রাধারানী, সাধারণ সম্পাদক মনি রানী দাস, দলিত নারী ফোরামের সদস্য কৈলাস, তামান্না রানী প্রমুখ।