তালায় পল্লী বিদ্যুতের দালাল ত্রিদীব ও ইলেকট্রিশিয়ান রাম গ্রেফতার

এসএম বাচ্চু, তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা : সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বৈদ্যুতিক সংযোগ দ্রুততার সাথে দেওয়ার নাম করে ৮০ জন নতুন গ্রাহকের কাছ থেকে ৬৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে দীর্ঘদিন আত্মগোপনে থাকার পরে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের কাছে ধরা পড়েছে দালাল চক্রের দু’সদস্য।
ভুক্তভোগী গ্রাহক সূত্রে জানা যায়, গত ৬ মাস আগে তালার দোহার গ্রামের একটি এলাকায় দ্রুততার সাথে বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপন করে দেওয়ার নাম করে গ্রাহকদের কাছ থেকে মিটারের টাকা জমা দেওয়া বাবদ ৮০ জন গ্রাহকদের কাছ থেকে ৬৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেই ইলেকট্রিশিয়ান দোহার গ্রামের সত্য রঞ্জন চক্রবর্ত্তীর পুত্র রাম প্রসাদ চক্রবর্ত্তী(৪১) ও জালালপুর গ্রামের নিতাই ঘোষের পুত্র ত্রিদীব কুমার ঘোষ(৩৯)। কিন্তু দীর্ঘদিন হয়ে গেলেও গ্রাহকদের বৈদ্যুতিক সংযোগ না পাওয়ায় ত্রিদীব ও রাম প্রসাদকে তাগিদ দিতে থাকলে তারা বিভিন্ন তালবাহানা করতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা তালা উপজেলার পাটকেলঘাটায় অবস্থিত সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অফিসে মিটারের টাকা জমা দেওয়ার রশিদ চাইলে উক্ত চক্রটি অন্য একটি মিটারের টাকা দেওয়ার রশিদ কম্পিউটারের সাহায্যে স্ক্যানিং করে সিরিয়াল বসিয়ে ফটোষ্ট্যাট করে গ্রাহকদের হাতে তুলে দেয়। প্রায় মাস পার হলেও বিদ্যুৎ সংযোগ না যাওয়ায় গ্রাহকরা সরাসরি সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অফিসে যোগাযোগ করলে বলে আপনারা আগে টাকা জমা দেন।
এসময় বেশকিছু গ্রাহক দালাল চক্রের দেওয়া ভুয়া রশিদ বের করে দিলে অফিস কর্তৃপক্ষ বুঝতে পারে এগুলো নকল। পরবর্তিতে গ্রাহকরা ত্রিদীব ও ওয়েরিং ম্যান রাম প্রসাদ’কে চাপ দিলে তারা আত্মগোপনে চলে যায়।
গোপন সংবাদ পেয়ে দোহারের বিদ্যুৎ প্রত্যাশী গ্রাহকরা দু’দালাল চক্রের সদস্যকে পাটকেলঘাটা বাজারের কাউন্সিল রোড থেকে ধরে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সামনে নিয়ে আসলে গ্রাহকদের রোষানলে পড়ে ৬১ হাজার ৭৫০ টাকা ফেরৎ দিয়ে তাদের ভুল স্বীকার করে। ততক্ষণে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জেনে ও এধরনের সমিতির নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারণা মূলক কর্মকান্ড করার জন্য দুজনকে পুলিশে সোপর্দ করে।