তালার জালালপুর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ কাজ শুরু

এসএম বাচ্চু, তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা : “আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত সবার জন্য বাসস্থান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ আওতায় সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নে যাদের জমি আছে, ঘর নেই এমন ১১৩টি পরিবারকে নতুন ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন জানান, উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নে ১১৩টি পরিবার যাদের জমি আছে, ঘর নেই এমন পরিবারকে বাছাই পুর্বক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ঘর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। প্রতিটি ঘর ১লক্ষ টাকায় নির্মাণ করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজ শুরু করেছেন।

জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদের পুরষ্কার প্রাপ্ত চেয়ারম্যান এম মফিদুল হক লিটু বলেন, আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ আওতায় জালালপুর ইউনিয়নে ১১৩টি ঘর নির্মণের কাজ চলছে। এই গ্রহীতা হলেন যাদের জমি আছে ঘর নাই তারা। এদের সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য ও স্থানীয় গণ্যমাণ্য ব্যাক্তিদের সহোযোগিতায় তালিকা করে ঘর প্রদান কার হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, সরকারী প্রদত্ত ঘরের নমুনা হলো ভিট ইটের আর দেওয়াল টিনের তবে তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীনের পরামর্শক্রমে টিনে দেওয়ালের পরিবর্তে ইটের দেওয়ালের ব্যবস্থা করেছে। এতে করে অসহায় গরীব মানুষের একটি নির্দিষ্ট থাকার জায়গা হলো। ঘর নির্মানের কাজ সর্বক্ষণ পর্যবেক্ষণ করছেন তালা উপজেলা নিবার্হী অফিসার সাজিয়া আফরীন ও আমি এবং আমার ইউপি সদস্যবৃন্দ।

অপরদিকে “আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত সবার জন্য বাসস্থান আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় ঘর পাওয়া পরিবারের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে। তারা প্রধাানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন এবং ইউপি চেয়ারম্যান এম মফিদুল হক লিটুর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, ১৯৯৭ সালের বিভিন্ন এলাকা ঘূর্ণিঝড়ে আক্রান্ত হওয়ায় বহু পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়ে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের দুঃখ দুর্দশা দেখে অত্যন্ত সহানুভূতিশীল হয়ে পড়েন এবং সকল গৃহহীন পরিবারসমূহকে পুনর্বাসনের তাৎক্ষনিক নির্দেশ দেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৯৭ সালে “আশ্রন” নামে একটি প্রকল্প প্রহণ করা হয়। সম্পূর্ণ বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ১৯৯৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত তিন (০৩) টি ফেজে আশ্রায়ণ প্রকল্প (৯১৯৭) আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প (২০১০) চলমান রয়েছে।