ঢাবির ইংরেজি বিভাগের আসন পূরণে যোগ্য শিক্ষার্থী পাওয়া যায়নি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খ ইউনিটে যোগ্য শিক্ষার্থীর অভাবে ২৩টি আসন ফাঁকাই থেকে গেলো। আড়াই হাজারেরো বেশি শিক্ষার্থীকে ভাইভায় ডাকার পরেও ইংরেজী বিভাগের ফাঁকা ২৩টি আসনে ভর্তির জন্য যোগ্য শিক্ষার্থী পাওয়া যায়নি।


ইংরেজী বিভাগে ভর্তির জন্য ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজীতে মোট ৩০ নম্বরের মধ্যে ২০ নম্বর প্রয়োজন ছিল।
সর্বশেষ তৃতীয় দফায় ১৭ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার ভাইভা অনুষ্ঠিত হয়। ফাঁকা আসন পূরণে ৩য় বারের মত শিক্ষার্থীদের ডাকা হলেও যোগ্য শিক্ষার্থী পাওয়া যায়নি। ।
এর আগে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ১৪ শতাংশ পাশ করেছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
২৫ সেপ্টেম্বর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দুই হাজার ৩৭৮ আসনের বিপরীতে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৩৩ হাজার ৮৯৭ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে পাশ করেছে মাত্র চার হাজার ৭৪৭ জন।
একটা সময় ছিল যখন যখন মেধায় প্রথম আড়াইশ’র মধ্যে না থাকলে শিক্ষার্থীরা ইংরেজী বিভাগ পেতেন না। কিন্তু এখন সেই চিত্র বদলে গেছে, আড়াই হাজার শিক্ষার্থীকে ডেকেও আসন পূরন করা যায়নি।
শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. মনজুরুল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীরা গাইড বই, নোট বই পড়ার কারনে এসব সমস্যা হচ্ছে। ছন্নছাড়া অবস্থা চলছে। গ্রামের স্কুলগুলো আরো শিক্ষার মান বাড়াতে হবে।
ইংরেজি বিভাগের চেয়রাম্যান অধ্যাপক ড. কাজল কে ব্যানারজি বলেন, শিক্ষার মান নেমে গেছে। শিক্ষার পরিস্থিতি ভালো নেই। শিক্ষার্থীরা বই থেকে দূরে সরে গেছে। ফেইসবুকে সময় নষ্ট করছে।মৌলিক জ্ঞান অর্জন না করার কারনেই উচ্চশিক্ষায় তারা ভালো বিষয় পাচ্ছেনা।