ড. এম. এ. ওয়াজেদ মিয়া এক গর্বিত ও আলোকিত মানুষের নাম

বিশেষ প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বামী ও বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম. এ. ওয়াজেদ মিয়া’র ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের উদ্যোগে ৯ মে ২০১৮ ইং সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ৫১,৫১/এ, পুরানা পল্টন (৯ম তলা) ঢাকায় বিকাল ৩টায় কোরআন খতম, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল প্রভৃতি কর্মসূচি পালন করা হয়।

বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল এর সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, জাতীয় গীতি কবি পরিষদের সভাপতি কবি এম আর মঞ্জু, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিল, বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের সভাপতি মোঃ জিন্নাত আলী খান জিন্নাহ ও সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন টয়েল, মানিকগঞ্জ জেলা সমিতির সভাপতি আজহারুল ইসলাম, বাংলাদেশ শিক্ষা পর্যবেক্ষক সোসাইটির চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শরীফুল ইসলাম, কবি টীমনি খান রীনো, বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ চাঁদপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান সউদ, আওয়ামী লীগ নেতা আ.হ.ম মোস্তফা কামাল প্রমূখ।
আলোচনা শেষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন, মাওলানা মোঃ শামসুল হক হাবিবী। সভাপতির বক্তব্যে লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল বলেন, ড. এম. এ. ওয়াজেদ মিয়া বাঙালি জাতির এক গর্বিত ও আলোকিত মানুষের নাম। তিনি আজীবন মানবতার কল্যাণে কাজ করেছেন। ১৯৭৫ পরবর্তী সময় বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে দেখাশুনা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সংরক্ষণ এবং বিস্তারে তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। তিনি একজন নির্লোভ, নিরহংকার ও মানবিক গুণাবলিতে উজ্জীবিত পরিশুদ্ধ মানুষ ছিলেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের প্রচার সম্পাদক এডভোকেট খান চমন-ই-এলাহী, পাঠাগার সম্পাদক কামাল হোসেন খান, নির্বাহী সদস্য মোঃ দুলাল মিয়া, মোঃ মাসুদ আলম, সদস্য কবি মায়ারাজ, কবি সাহিদুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম বাবুল, শাহারুল ইসলাম রকি, রাজিবুল হক রাজিব, মোঃ আসাদ মিয়া প্রমুখ। অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য বুদ্ধিজীবী, আলেমসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।