ডিজিটাল আইন সংশোধনের দাবি রাবি সাংবাদিকতা বিভাগের

রাবি প্রতিবেদক : ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বিচারের আগেই বিচার ও শাস্তির বন্দবস্ত হয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আল মামুন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে ডিজিটাল যোগাযোগের চর্চা শুরু হয়েছে যাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। তবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বেশ কিছু ধারা সেই চর্চার অন্তরায় হয়ে উঠবে বলে আমরা মনে করি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অধ্যাপক আরও বলেন, এই আইনের মাধ্যমে আপনাকে জামিন অযোগ্য ধারায় বিচারের আগেই বিচারের বন্দবস্ত হয়ে যাচ্ছে। শাস্তির বন্দবস্ত হয়ে যাচ্ছে। মাসের পর মাস বছরের পর বছর। বিভিন্ন গোষ্ঠী এই আইনের অপব্যবহার করতে পারে। অপব্যবহার করার পর্যাপ্ত সুযোগ আছে।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার সাথে সাংঘর্ষিক ধারা সমূহ বাতিলের দাবিতে সাংবাদিকতা বিভাগের ব্যানারে বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টায় বিভাগের সামনে এক মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এসময় বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

‘বর্তমানে এই আইনের অপব্যবহার হচ্ছে, ভবিষ্যতে আরও অপব্যবহার হতে পারে। সাংবাদিকতা চর্চার ক্ষেত্রে, চিন্তার ক্ষেত্রে এটা একটা বড় রকমের বাধা বলে আমরা মনে করি। এই আইনের কিছু ধারা অবশ্যই পরিবর্তন করা প্রয়োজন বলে মত দেন তিনি। যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাংবাদিকতা চর্চা করা হয় তাদেরও এই আইনের ওইসব ধারা নিয়ে আলোচনা করা, প্রতিবাদ করার দাবি জানান তিনি।

বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মামুন আব্দুল কাইয়ুমের সঞ্চালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বিভাগের অধ্যাপক ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে, মশিহুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক কাজী মামুন হায়দার রানা, মাহাবুর রহমান অনিন্দ্য, প্রভাষক আব্দুল্লাহ বাকী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Inline
Inline