ডাচ্–বাংলা চালু করল ভার্চ্যুয়াল ক্রেডিট কার্ড

স্মার্টফোন অ্যাপ্লিকেশন কিংবা কম্পিউটার প্রোগ্রামারদের ব্যক্তিপর্যায়ের অনলাইন মূল্য পরিশোধের সমস্যা দূর করতে বাংলাদেশ ব্যাংক সম্প্রতি সব ব্যাংককে ভার্চ্যুয়াল কার্ড চালুর নির্দেশনা দেয়। এরই অংশ হিসেবে আন্তর্জাতিক ভার্চ্যুয়াল কার্ড চালু করল ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড। গতকাল বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এবং ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের যৌথ আয়োজনে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

সম্মেলনে বেসিসের সভাপতি শামীম আহসান বলেন, ‘আন্তর্জাতিক মাধ্যমে কোনো কিছু কেনাকাটার ক্ষেত্রে কোনো সহজ রাস্তা ছিল না বলে বাংলাদেশের ব্যক্তিপর্যায়ে অ্যাপস নির্মাতা বা প্রোগ্রামাররা নানা সমস্যার মধ্যে ছিলেন। এই কার্ড চালুর মাধ্যমে অনলাইন লেনদেনে সমস্যাটা দূর হয়ে যাবে।’

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান সায়েম আহমেদ জা্নান, ভার্চ্যুয়াল কার্ড পেতে হলে বেসিস কিংবা সরকারের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের দেওয়া মুঠোফোন অ্যাপ, গেম, হ্যাকাথন ইত্যাদি প্রতিযোগিতার সনদ প্রমাণ হিসেবে দেখাতে হবে এবং ডাচ্-বাংলা ব্যাংক থেকে নির্দিষ্ট ফরমে আবেদন করতে হবে। তিনি বলেন, ‘এর আগে বেসিসের সদস্যপ্রতিষ্ঠানগুলোই শুধু এ ধরনের সুবিধা পেত। এখন ব্যক্তিপর্যায়ে দেশের যেকোনো জায়গা থেকে ভার্চ্যুয়াল কার্ড গ্রহণ করা যাবে।’

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এস তাবরেজ, বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি রাসেল টি আহমেদ, মহাসচিব উত্তম কুমার পাল, পরিচালক আশ্রাফ আবীরসহ অনেকে।
ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এই কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সর্বোচ্চ ৩০০ ডলার পরিশোধ করা যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী, এই কার্ড পেতে হলে আবেদনকারীকে প্রোগ্রামার, ডেভেলপার বা ফ্রিল্যান্সার হিসেবে প্রমাণ দেখাতে বেসিসের কাছ থেকে অনুমোদন নেওয়া যাবে।